Featuredসিলেট থেকে

রাত পোহালেই সিসিক নির্বাচন: ২৭ ওয়ার্ডের ভোটকেন্দ্র যেখানে

শীর্ষবিন্দু নিউজ: সিলেট সিটি নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শেষ হয়েছে। গত ১৯ দিনে মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থীরা অবিরাম প্রচার চালিয়েছেন।

প্রার্থীরা ভোটারদের দিয়েছেন একরাশ প্রতিশ্রুতি। পরস্পরের প্রতি কমবেশি দোষারোপও করেছেন অনেক প্রার্থী। উৎসবের আমেজের সাথে কিছু অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটেছে।

সব শেষে এখন ভোটের অপেক্ষা। নির্বাচনের সব আয়োজন চূড়ান্ত। ভোট গ্রহণের জন্য প্রস্তুত নির্বাচন কমিশন। গতকাল শনিবার মাঝরাতে থামে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা। আজ রবিবার প্রার্থীদের দিন কাটবে আশা আর শঙ্কা নিয়ে। রাত পোহালেই ভোট।

আগামীকাল সোমবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহণ চলবে। অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন আয়োজনে নেওয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। র‌্যাব-পুলিশের পাশাপাশি টহলে নেমেছে বিজিবি।

নির্বাচন অফিসসূত্র জানায়, নগরের ১৩৪টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের জন্য ২ হাজার ৯১২ জন কর্মকর্তার পাশাপাশি অতিরিক্ত আরো ২৮৮ জন কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। গত বৃহস্পতি ও শুক্রবার তাঁদেরকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। গঠন করা হয়েছে নির্বাচনী ট্রাইব্যুনাল। দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেটরা ট্রাইব্যুনালে কাজ করবেন। নির্বাচন পর্যবেক্ষক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ১১ জন নির্বাচন কর্মকর্তা। ১৩৪ কেন্দ্রের মধ্যে ৮০টি ভোট কেন্দ্রকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এই ৮০ কেন্দ্রে থাকবে বাড়তি নিরাপত্তা।

সিলেট সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মোঃ আলীমুজ্জামান জানান, অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে নির্বাচন কমিশন সব রকম প্রস্তুতি চূড়ান্ত করেছে। শান্তিপূর্ণ নির্বাচন উপহার দিতে নির্বাচন কমিশন দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

এবার সিলেট সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে দলীয় প্রতীকে ভোট হচ্ছে। ফলে জাতীয় নির্বাচনের কয়েক মাস আগেই নগরবাসী আগামীকাল নৌকা-ধানের শীষের ভোট লড়াই  উপভোগ করবেন।

মেয়র পদে এবার প্রার্থী হয়েছিলেন ৭ জন। তবে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিম ইতিমধ্যে ঘোষণা দিয়ে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন। এখন ভোটের লড়াইয়ে আছেন ছয়জন। তাঁরা হলেন- আওয়ামী লীগের বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, বিএনপির আরিফুল হক চৌধুরী, জামায়াতের (স্বতন্ত্র) এহসানুল মাহবুব জুবায়ের, ইসলামী আন্দোলনের ডাঃ মোয়াজ্জেম হোসেন খান, সিপিবি-বাসদের কমরেড আবু জাফর ও স্বতন্ত্র এহসানুল হক তাহের।

সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ১২৭ জন এবং সংরক্ষিত আসনের নারী কাউন্সিলর পদে ৬২ জন প্রার্থী আছেন ভোটের লড়াইয়ে। নগরের ৩ লাখ ২১ হাজার ৭৩২ জন ভোটার আগামীকাল আগামী ৫ বছরের জন্য তাঁদের প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন।

নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতাকারী প্রার্থীদের মধ্যে গত ১০ জুলাই প্রতীক বরাদ্দ করেছিল নির্বাচন কমিশন। মেয়র পদে বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পান নৌকা প্রতীক, আরিফুল হক চৌধুরী ধানের শীষ, এহসানুল মাহবুব জুবায়ের টেবিল ঘড়ি, ডাঃ মোয়াজ্জেম হোসেন খান হাতপাখা, আবু জাফর মই ও এহসানুল হক তাহের পান হরিণ প্রতীক।

প্রতীক বরাদ্দের পর শুরু হওয়া জমজমাট প্রচার গতকাল শেষ হয়েছে। প্রার্থীদের পোস্টারে ছেয়ে আছে পুরো নগর। যেদিকে চোখ যায় কেবল পোস্টার আর পোস্টার। আগামীকাল ভোট গ্রহণের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এই নির্বাচনী উৎসব।

সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) চতুর্থ নির্বাচন আগামীকাল সোমবার। নির্বাচনে নগরীর নগরীর ২৭টি সাধারণ ওয়ার্ড ৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে মোট ভোটকেন্দ্র ১৩৪টি। এসব কেন্দ্রে মোট ভোটকক্ষের সংখ্যা ৯২৬টি; তন্মধ্যে অস্থায়ী ভোটকক্ষ ৩৪টি।

ইসির তথ্যানুসারে, সিসিকে এক লাখ ৭১ হাজার ৪৪৪ পুরুষ ভোটার এক লাখ ৫০ হাজার ২৮৮ মহিলা ভোটার রয়েছে। সবমিলিয়ে ভোটার সংখ্যা লাখ ২১ হাজার ৭৩২।

ইসির তথ্য অনুসারে, সিসিকের ১নং ওয়ার্ডে ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ৪টি। কেন্দ্রগুলো হচ্ছেচৌহাট্টাস্থ আলিয়া মাদরাসা (উত্তর পূর্বপাশের ভবন মিলিয়ে ৩টি কেন্দ্র) এবং দরগা জালালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

সিসিকের ২নং ওয়ার্ডে রয়েছে ৩টি ভোটকেন্দ্র। এগুলো হচ্ছেমদনমোহন কলেজ (নতুন পুরাতন ভবনে দুটি কেন্দ্র) এবং দাড়িয়াপাড়াস্থ রসময় হাইস্কুল।

সিসিকের ৩নং ওয়ার্ডে ৫টি ভোটকেন্দ্র। কেন্দ্রগুলো হচ্ছেমীরের ময়দানস্থ ব্লুবার্ড স্কুল এন্ড কলেজ (নতুন পুরাতন ভবনে দুটি কেন্দ্র) এবং পুলিশ লাইন উচ্চবিদ্যালয় (উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব পশ্চিম পাশের ভবন মিলিয়ে ৩টি কেন্দ্র)

৪নং ওয়ার্ডে ৪টি ভোটকেন্দ্র রয়েছে। এগুলো হচ্ছেহাউজিং এস্টেটস্থ আম্বরখানা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ (ভবন ভবন দুটি কেন্দ্র) এবং আম্বরখানা সরকারি কলোনি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দক্ষিণ পশ্চিম পাশের ভবনে দুটি কেন্দ্র)

৫নং ওয়ার্ডে ৭টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেখাসদবীর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (উত্তর দক্ষিণ পাশের ভবনে দুটি কেন্দ্র), ইলেকট্রিক সাপ্লাই রোডস্থ স্কলার্সহোম প্রিপারেটরি স্কুল, খাসদবীরস্থ জামেয়া মাদিনাতুল উলুম দারুস সালাম (প্রথম দ্বিতীয় তলায় দুটি কেন্দ্র), হাজারীবাগস্থ এভারগ্রিন একাডেমি এবং গ্রিন ফেয়ার কিন্ডার গার্ডেন।

সিসিকের ৬নং ওয়ার্ডে ভোটকেন্দ্র আছে ৪টি। এগুলো হচ্ছেচৌকিদেখীস্থ বিলাস কমিউনিটি সেন্টার, শাহপরান (রহ.) প্রিক্যাডেট একাডেমি এবং আনোয়ার মতিন একাডেমি (দুটি কেন্দ্র)

৭নং ওয়ার্ডে ৮টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। এগুলো হচ্ছেসুবিদবাজারস্থ পরীক্ষণ প্রাইমারি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই) সংলগ্ন বিদ্যালয় (নতুন ভবন), পিটিআইএর একাডেমিক ভবন (দুটি কেন্দ্র), হলি সিটি পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, জালালাবাদ আবাসিক এলাকাস্থ আব্দুল গফুর ইসলামী আদর্শ উচ্চবিদ্যালয় কলেজ (দুটি কেন্দ্র), পশ্চিম পীরমহল্লাস্থ গৌছ উদ্দিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং গৌছুল উলুম জামেয়া ইসলামিয়া।

সিসিকের ৮নং ওয়ার্ডে রয়েছে ৮টি ভোটকেন্দ্র। কেন্দ্রগুলো হচ্ছেপাঠানটুলাস্থ শাহজালাল জামেয়া ইসলামিয়া কামিল মাদরাসা (৩টি কেন্দ্র), নোয়াপাড়াস্থ সিটি মডেল স্কুল, ব্রাহ্মণশাসনস্থ বীরেশ চন্দ্র উচ্চবিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র) এবং তারাপুরস্থ মদন মোহন কলেজ কমার্স ফ্যাকাল্টি (দুটি কেন্দ্র)

৯নং ওয়ার্ডের ৭টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেপাঠানটুলা দ্বিপাক্ষিক উচ্চবিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র), বাগবাড়িস্থ এতিম স্কুল (দুটি কেন্দ্র), বাগবাড়িস্থ বর্ণমালা সিটি একাডেমি, বিদ্যারণ্য স্কুল মহিলা কলেজ এবং সুবিদবাজারস্থ আনন্দ নিকেতন।

১০নং ওয়ার্ডের ৬টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেঘাসিটুলাস্থ জালালাবাদ স্কুল এন্ড কলেজ, ঘাসিটুলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ডহর প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র) এবং মঈন উদ্দিন আদর্শ মহিলা কলেজ (দুটি কেন্দ্র)

সিসিকের ১১নং ওয়ার্ডে ভোটকেন্দ্র আছে ৫টি। এগুলো হচ্ছেমধুশহীদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র), ভাতালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র) এবং লামাবাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

সিসিকের ১২নং ওয়ার্ডে ৪টি ভোটকেন্দ্র রয়েছে। কেন্দ্রগুলো হচ্ছেশেখঘাটস্থ মঈনুন্নেসা বালিকা উচ্চবিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র), শেখঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং শেখঘাটস্থ সরকারি বাক শ্রবণ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়।

১৩নং ওয়ার্ডের ৩টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেজামিয়া ইসলামিয়া মাদানিয়া কাজির বাজার মাদরাসা, মির্জাজাঙ্গাল বালিকা উচ্চবিদ্যালয় এবং চাঁদনীঘাটস্থ সারদা স্মৃতি ভবন।

১৪নং ওয়ার্ডের ৪টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেজিন্দাবাজারস্থ সরকারি অগ্রগামী বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কলেজ, কালীঘাটস্থ সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র) এবং চালিবন্দরস্থ হাকিম বশীরুল হক ছাত্রাবাস।

সিসিকের ১৫নং ওয়ার্ডে ৪টি ভোটকেন্দ্র আছে। এই কেন্দ্রগুলো হচ্ছেবন্দরবাজারস্থ দুর্গাকুমার পাঠশালা, মিরাবাজারস্থ শাহজালাল জামিয়া ইসলামিয়া স্কুল এন্ড কলেজ (দুটি কেন্দ্র) এবং মিরাবাজারস্থ কিশোরী মোহন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (বালক শাখা)

সিসিকের ১৬নং ওয়ার্ডে ৪টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেতাঁতিপাড়াস্থ দ্য এইডেড হাইস্কুল এবং নয়াসড়কস্থ কিশোরী মোহন বালিকা উচ্চবিদ্যালয় (৩টি কেন্দ্র)

সিসিকের ১৭নং ওয়ার্ডে ভোটকেন্দ্র রয়েছে ৬টি। এই কেন্দ্রগুলো হচ্ছেকাজীটুলাস্থ কাজী জালাল উদ্দিন বালক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কাজী জালাল উদ্দিন বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র), লোহারপাড়াস্থ শাহীন স্কুল এন্ড কলেজ, কাজীটুলাস্থ দ্য রয়েল এমসি একাডেমি এবং আম্বরখানা দরগা গেইট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

১৮নং ওয়ার্ডে আছে ৫টি ভোটকেন্দ্র। এগুলো হচ্ছেমিরাবাজারস্থ মডেল হাইস্কুল, ঝর্ণারপাড়স্থ কাজী জালাল উদ্দিন বহুমুখী বালিকা উচ্চবিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র) এবং রায়নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র)

১৯নং ওয়ার্ডের ৪টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেশাহী ঈদগাস্থ শাহ মীর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র), বখতিয়ারবিবি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং দর্জিপাড়াস্থ সার্ক ইন্টারন্যাশনাল কলেজ।

২০নং ওয়ার্ডের ৫টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেএমসি কলেজ, দেবপাড়াস্থ নবীনচন্দ্র সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র) এবং সাদিপুরস্থ সৈয়দ হাতিম আলী উচ্চবিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র)

সিসিকের ২১নং ওয়ার্ডে রয়েছে ৫টি ভোটকেন্দ্র। কেন্দ্রগুলো হচ্ছেসাদিপুরস্থ সৈয়দ হাতিম আলী প্রাথমিক বিদ্যালয়, কালাসীলস্থ চান্দুশাহ জামেয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসা, সোনারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র) এবং শিবগঞ্জস্থ স্কলার্সহোম প্রিপারেটরি স্কুল।

সিসিকের ২২নং ওয়ার্ডে ভোটকেন্দ্র হচ্ছে ৫টি। এগুলো হচ্ছেশাহজালাল উপশহর উচ্চবিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র), উপশহরস্থ শাহজালাল আদর্শ বিদ্যালয়, শাহজালাল উপশহর একাডেমি এবং উপশহরস্থ বাংলাদেশ ব্যাংক স্কুল।

সিসিকের ২৩নং ওয়ার্ডের ৩টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেমাছিমপুরস্থ আব্দুল হামিদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র) এবং মেন্দিবাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

২৪নং ওয়ার্ডের ৪টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেউমরশাহ তেররতন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র), টুলটিকরস্থ গাজী বুরহানউদ্দিন গরম দেওয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং কুশিঘাটস্থ শাহ গাজী সৈয়দ বুরহানউদ্দিন (রহ.) মাদরাসা।

২৫নং ওয়ার্ডে ভোটকেন্দ্র রয়েছে ৬টি। কেন্দ্রগুলো হচ্ছেকায়েস্থরাইল উচ্চবিদ্যালয়, মেনিখোলা মৌরবিবি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কায়েস্থরাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, খোজারখলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র) এবং টেকনিক্যাল রোডস্থ সিলেট টেকনিক্যাল স্কুল কলেজ।

সিসিকের ২৬নং ওয়ার্ডের ৬টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেভার্থখোলাস্থ নছিবা খাতুন বালিকা উচ্চবিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র), কদমতলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র), ঝালোপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং রেলওয়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

সিসিকের ২৭নং ওয়ার্ডের ৫টি ভোটকেন্দ্র হচ্ছেপাঠানপাড়াস্থ জহির তাহির মেমোরিয়াল উচ্চবিদ্যালয় (দুটি কেন্দ্র), গোটাটিকর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গোটাটিকর দ্বিমুখী উচ্চবিদ্যালয় এবং হবিনন্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close