Featuredসিলেট থেকে

সিলেটেও চলেনি গাড়ি: দুর্ভোগ

শীর্ষবিন্দু নিউজ: অঘোষিত পরিবহন ধর্মঘটে অচল হয়ে পড়েছিল সিলেটও। কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার কোনো যানবাহন ছেড়ে যায়নি। পাশাপাশি সিলেট থেকে বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায়ও যানবাহন চলেনি।

এদিকে পরিবহন ধর্মঘটে কারণে ওলিকুল শিরোমণি হযরত শাহজালাল (রহ.)-এর উরসে আসা ভক্তরা দুর্ভোগে পড়েন। দিনভর অপেক্ষার পরও তারা যানবাহন সংকটের কারণে বাড়ি ফিরতে পারেনি। শুক্রবার সকাল থেকে সিলেটে অঘোষিত পরিবহন শুরু হয়।

এ সময় সিলেট জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সেলিম আহমদ ফলিক জানান, তারা কোনো পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেননি। তবে নিরাপত্তার অভাবে মালিক সমিতির নির্দেশে যানবাহন বন্ধ রাখেন শ্রমিকরা। সকালে সিএনজি অটোরিকশাসহ প্রাইভেট যানবাহনগুলো চলাচল করছিল।

কিন্তু সকাল ১০টার পর পরিবহন শ্রমিকরা অবস্থান নেন নগরীর মোড়ে মোড়ে। নগরীর প্রবেশমুখ চন্ডিপুুল, হুমায়ূন রশীদ স্কয়ার, শেখঘাট পয়েন্টসহ কয়েকটি এলাকায় তারা অবস্থান নেন।

এ সময় তারা শহরমুখী যানবাহনগুলো অবরোধস্থলেই আটকে দেয়। ফলে যাত্রীরা হালকা যানবাহন নিয়ে নগরীতে এলেও পায়ে হেঁটে তাদের গন্তব্যে যেতে দেখা যায়।

চন্ডিপুল এলাকায় অবস্থান নেওয়া পরিবহন শ্রমিকরা জানান, নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে তারা যানবাহন নিয়ে চলাচলকারী চালকদের সতর্ক করে দিচ্ছেন। তবে- চলাচলে বাধা দেওয়া হচ্ছে না।

তারা বলেন, বৃহস্পতিবার নগরীর চৌহাট্টা এলাকায় তাদের কয়েকটি যানবাহন আটকে দেওয়া হয়। এ সময় ভাঙচুর করা হয়। এরপর থেকে তাদের মধ্যে আতংক বিরাজ করে। আতংকের কারণেই তারা যানবাহন নিয়ে রাস্তায় নামছেন না।

পরিবহন শ্রমিকরা রাস্তায় নেমে অবরোধ সৃষ্টি করলেও পুলিশের পক্ষ থেকে কোনো বাধা দেওয়া হয়নি। তবে শুক্রবার সিলেটের রাস্তায় নামেনি ছাত্ররা। বৃহস্পতিবার বিকালে তারা ঘরে ফেরার পর আর রাস্তায় নামেননি।

বাস চলাচল বন্ধের কারণ জানতে চাইলে সিলেট বাস মালিক-শ্রমিক ঐক্যপরিষদের কোষাধ্যক্ষ আবদুল হক মানিক জানিয়েছেন, রাস্তায় বের হলেই শিক্ষার্থীরা ইচ্ছামতো বাস ভাঙচুর করছে।

এতে মালিকরা লাখ লাখ টাকা ক্ষতির মুখে পড়ছেন। তাই নিরাপত্তার অভাবে শুক্রবার ঢাকামুখী বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়। পাশাপাশি সিলেট আঞ্চলিক সড়কেও সকল প্রকার যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

তিনি আরো জানান, কেন্দ্র থেকে পরবর্তী ঘোষণা না আসা পর্যন্ত তাদের এ বাস চলাচল বন্ধ থাকবে। এদিকে শ্রমিকরা দাবি করছেন, বাস চালকদের মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে সড়ক নিরাপত্তা আইন প্রণয়নের উদ্যোগের প্রতিবাদে বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

তাদের দাবি, রাস্তায় চলাচলের সময় দুর্ঘটনা ঘটতেই পারে। চালকরা এজন্য দায়ী নয়। সড়কে নিরাপত্তা না থাকার অজুহাতে সিলেটের মতো দেশের আরও বেশ কয়েকটি জেলায় বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে মালিক-শ্রমিক ঐক্যপরিষদ।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close