Featuredযুক্তরাষ্ট্র জুড়ে

মুসলিম নারীকে মার্কিন এয়ারপোর্টে হেনস্তা

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন এয়ারপোর্টে মুসলিমদের ওপর বাড়তি নিরাপত্তা তল্লাশী করা হয় দীর্ঘদিন ধরেই।

তবে তা বাড়াবাড়ি পর্যায়ে চলে গেছে এক হারভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীর ক্ষেত্রে। এমনকি নিরাপত্তা তল্লাশির নামে তাকে নগ্ন করে রক্তাক্ত প্যাডও খুলে দেখাতে বাধ্য করে এয়ারপোর্টের কর্মীরা।

তিনি অভিযোগ করেন, এয়ারপোর্টের কর্মীরা অত্যন্ত বাড়াবাড়ি রকমের কড়াকড়ি তল্লাশি করেছেন তার সঙ্গে।

যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ ফ্লাইটে বোস্টন থেকে ওয়াশিংটন ডিসিতে যাচ্ছিলেন জয়নাব। এ সময় এয়ারপোর্টে তার সঙ্গে এ অভদ্র আচরণ করে যুক্তরাষ্ট্রের ট্রান্সপোর্টেশন সিকিউরিটি অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (টিএসএ) নিরাপত্তা কর্মীরা।

এমনকি এক পর্যায়ে জয়নাবকে অন্য একটি কক্ষে নিয়ে গিয়ে তার ট্রাউজার ও অন্তর্বাস খুলে ফেলে। এ সময় তিনি তাদের প্যাড পরে থাকার কথা জানান। তাতেও দমে যায়নি এয়ারপোর্টের কর্মীরা। তারা রক্তাক্ত প্যাড প্রদর্শনে বাধ্য করে জয়নাবকে।

বিষয়টিতে জয়নাব খুবই বিব্রতবোধ করেছেন বলে জানিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এজন্য দুঃখ করে পোস্টও করেছেন জয়নাব। তাতে অনেকেই জয়নাবের পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং এ ঘটনার প্রতিবাদ করেছেন।

তবে শুধু এবারই প্রথম নয়। জয়নাব বলছেন তিনি ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাস থেকেই মার্কিন এয়ারপোর্টে বাড়তি নজরদারির শিকার হচ্ছেন।

এমনকি এয়ারপোর্টের বিশ্রামাগারে গেলে তাকে সেখানেও অনুসরণ করে নিরাপত্তা কর্মীরা। জয়নাব মার্চেন্ট নামে সেই নারী তার সেই হেনস্তার ঘটনার কিছু অংশ ভিডিও করে রেখেছিলেন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close