Featuredযুক্তরাষ্ট্র জুড়ে

বিদেশি কূটনৈতিদের সমকামী সঙ্গীদের ভিসা বাতিল করেছে ট্রাম্প প্রশাসন

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: বিদেশি কূটনৈতিক, দূতাবাসের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সমকামী অবিবাহিত সঙ্গীদের ভিসা বাতিল করেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন

গত মাসে নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদরদপ্তরেও একটি মেমো পাঠায় প্রশাসন। এতে বিদেশি কূটনৈতিক জাতিসংঘে কর্মরতদের সমকামী বিবাহিত সঙ্গীদের হয় যুক্তরাষ্ট্র ছাড়তে হবে বা মার্কিন ভিসা বহাল রাখার জন্য বিয়েবন্ধনে আবদ্ধ হতে বলা হয়।

সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময় দায়িত্ব পালন করা জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত সামান্থা পাওয়ার বলেন, জাতিসংঘের ১৯৩টি সদস্যের মধ্যে মাত্র ১২ ভাগ দেশে সমকামী বিয়ে সিদ্ধ। পাওয়ার টুইট বার্তায় এই আইনকেনিষ্ঠুর গোঁড়া বলে সম্মোধন করেন

এদিকে ট্রাম্প প্রশাসন মনে করছে, নতুন এই আইন ২০১৫ সালে মার্কিন সুপ্রিমকোর্টের দেয়া সমকামী বিয়ে বৈধতার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ। তবে সমালোচকরা বলছেন, নতুন এই নীতির ফলে সমকামী দম্পতিরা সমস্যার মুখে পড়বেন, কারণ অনেক দেশেই সমকামী বিয়ে নিষিদ্ধ মৃত্যুদযোগ্য অপরাধ।

আর যারা মার্কিন ভিসা বহাল রাখার জন্য বিয়ে করবেন তারা নিজ দেশে ফেরত গেলে সিভিল আইনের অধীনে হতে পারেন

জাতিসংঘের হিউম্যান রাইটস ওয়াচের ডেপুটি নির্বাহী অক্ষয় কুমার বলেন, কোন দেশেরই ভিসা সুরক্ষার জন্য বিয়ে করা গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে না।

এটি যারা বিয়ে ছাড়াই একসঙ্গে থাকার সিদ্ধান্ত বেছে নিয়েছেন তাদের ওপর জোরপূর্বক চাপানো সিদ্ধান্ত। লেসবিয়ান, গে, উভকামী রুপান্তরকামীদের অধিকারের জন্য কাজ করা ইউএন গ্লোব জানায়, এর মাধ্যমে সমকামী দম্পতি কিংবা সাধারণ দম্পতিদের পছন্দকে সীমাবদ্ধ করে ফেলা হবে।

ফরেইন পলিসি ম্যাগাজিনের প্রতিবেদনে বলা হয়, ট্রাম্প প্রশাসনের এমন নীতির কারণে জাতিসংঘে কর্মরত বর্তমানে ১০টি দেশের কূটনৈতিকদের সঙ্গীরা বিপাকে পড়তে পারেন। যদিও ঠিক কতজন বিদেশি কূটনৈতিক ক্ষতিগ্রস্ত হবেন তা এখনো পরিষ্কার নয়

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close