Featuredযুক্তরাজ্য জুড়ে

ব্রেক্সিটের ট্রানজিশন পিরিয়ড হতে পারে ২০২২ সাল পর্যন্ত

শীর্ষবিন্দু নিউজ: যুক্তরাজ্যের বাণিজ্যমন্ত্রী গ্রেগ ক্লার্ক সোমবার বলেছেন, চূড়ান্তভাবে ব্রেক্সিট কার্যকরের জন্য যুক্তরাজ্যের ২০২০ সালের পরেও সময় লাগতে পারে।

২০১৯ সালের ২৯ মার্চ ব্রেক্সিট চূড়ান্ত করার শেষ দিন নির্ধারিত হয়ে থাকলেও ইইউ থেকে বেরিয়ে নিজস্ব আইন সম্পূর্ণভাবে কার্যকরের আগে প্রয়োজনীয় ট্রানজিশন পিরিয়ড বা মধ্যবর্তী সময় হিসেবে ধরা হয়েছিল ২০২০ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত।

দেশটির সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান লিখেছে, তার এ বক্তব্যে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির যেসব সদস্য ইতোমধ্যে ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের বিষয়ে প্রত্যাশা ভঙ্গের শিকার হয়েছেন তারা আরও বেশি ক্ষুব্ধ হয়ে উঠবেন এবং প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মেকে নেতৃত্ব থেকে সরাতে আরও তৎপর হবেন।

২০১৯ সালের ২৯ মে ব্রেক্সিট কার্যকর হয়ে গেলে শুরু হবে ট্রানজিশন পিরিয়ড। এ সময়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো নতুন আইনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে তাদের ব্যবসার প্রয়োজনীয় পরিবর্তন করতে পারবেন। ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হবে নতুন আইন।

অর্থাৎ ২০২০ সালের শেষ পর্যন্ত যুক্তরাজ্য ইইউয়ের একক বাজারেরই অন্তর্ভুক্ত থাকবে। এসময় দেশটি কোনও নীতি পরিবর্তনের বিষয়ে দাবি তুলতে পারবে না ইইউয়ের সদস্য অপর রাষ্ট্রগুলোর মতো। এ সময়কালে ইইউভুক্ত দেশের নাগরিকরা যুক্তরাজ্যে চলাফেরার ক্ষেত্রে ব্রিটিশ নাগরিকদের মতোই সুবিধা ভোগ করবেন। ট্রানজিশন পিরিয়ডে ‘কমন ফিসারিজ পলিসিরও’ অংশ থাকবে যুক্তরাজ্য।

ব্রিটিশ বাণিজ্য মন্ত্রী বিবিসি রেডিওকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সোমবার (১৯ নভেম্বর) বলেছেন, এতে যুক্তরাজ্যের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো উপকৃত হবে। তার ভাষ্য, ‘আরও দীর্ঘ ট্রানজিশন পিরিয়ড আমরা চাইতে পারি। এটা একান্তই যুক্তরাজ্যের এখতিয়ারে থাকা বিষয়।

আবার এমন বিষয়ও আছে যার কারণে আমরা দীর্ঘ সময় নাও নিতে পারি। তবে দীর্ঘ সময় নেওয়ার সুযোগ আমাদের হাতে রয়েছে।’ ট্রানজিশন পিরিয়ড ২০২২ সাল পর্যন্ত হতে পারে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেছেন, সে সম্ভাবনা তিনি উড়িয়ে দিচ্ছেন না।

এদিকে চূড়ান্তভাবে ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের এমন বিলম্বের পরিকল্পনার কথা জানতে পেরে কনজারভেটিভ পার্টির অনেকে আরও ক্ষুব্ধ হবেন বলে মনে করে গার্ডিয়ান। গত সপ্তাহেই ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের ব্রেক্সিট বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া নিয়ে অসন্তুষ্ট চার মন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন।

কয়েকজন এমপি নতুন করে কনজারভেটিভ পার্টির চেয়ারম্যানের কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন মের নেতৃত্বের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে। এমন চিঠি ৪৮টি হলেই মের বিষয়ে আস্থা ভোটের আয়োজন করা হবে। সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, খুব সহসাই চিঠি পাঠানো কনজারভেটিভ এমপির সংখ্যা ৪৮ জনে পৌঁছে যেতে পারে।

ট্রানজিশন পিরিয়ড দীর্ঘায়িত করার বিষয়টি প্রথমে উত্থাপন করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষে নিযুক্ত ব্রেক্সিটবিষয়ক প্রধান মধ্যস্থতাকারী মাইকেল বার্নিয়ার।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের এক সম্মেলনে তিনি ২১ মাসের ট্রানজিশন পিরিয়ডের বদলে ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত এর মেয়াদ বর্ধিত করার প্রস্তাব করেন, যাতে ব্রেক্সিটের পরে ইইইউ ও যুক্তরাজ্যের মধ্যকার সম্পর্ক সাবলীল করতে কিছুটা বেশি সময় পাওয়া যায়।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close