রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:৪৯ পূর্বাহ্ন

ইসলামোফোবিয়ায় জার্মানিতে বসবাসরত মুসলমানদের উদ্বেগ

শীর্ষবিন্দু ডেস্ক / ২ বার পড়া হয়েছে
প্রকাশ কাল : বুধবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২১, ৪:২৪ অপরাহ্ন

শীর্ষবিন্দু নিউজ, ফ্রাঙ্কফুট, জার্মানী: ইসলামের প্রতি বিদ্বেষজনিত অপরাধে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন জার্মানিতে ক্রমেই বাড়তে থাকা মুসলিম সম্প্রদায়। তুর্কি সংবাদ সংস্থা আনাদোলু এজেন্সির দেয়া তথ্য মতে এ খবর জানা যায়।

গত সোমবার দেশটিতে বাস করা মুসলিম সম্প্রদায়ের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিরা এমনই মত প্রকাশ করেছেন আনাদোলু এজেন্সির কাছে। আট কোটি জনসংখ্যার জার্মানি পশ্চিম ইউরোপে ফ্রান্সের পরপরই বৃহত্তম মুসলিম অধ্যুষিত দেশ।

দেশটিতে বর্তমানে ৪৭ লাখ মুসলমান বাস করছেন, যার মধ্যে ৩০ লাখই তুর্কি বংশদ্ভুত। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দেশটিতে নিও-নাৎসি গোষ্ঠী ও উগ্র জাতীয়তাবাদী এএফডি পার্টির প্রোপাগান্ডায় বর্ণবাদ ও ইসলামফোবিয়া বা ইসলাম বিদ্বেষ বেড়ে চলছে। মুসলিম ও অভিবাসীদের বিরুদ্ধে ভীতি ছড়িয়ে বেশি ভোট আদায়ের জন্য এএফডি পার্টি এই প্রোপাগান্ডায় অংশ নিয়েছে।

তুর্কি-মুসলিম অ্যাসোসিয়েশন আইজিএমজি প্রেসিডেন্ট কামাল এরগুন জানান, সাম্প্রতিক মাসগুলোতে জার্মানির বিভিন্ন মসজিদ হুমকি, ভাঙচুর বা আগুন লাগানোসহ বিভিন্নভাবে আক্রান্ত হচ্ছে। তিনি বলেন, গত বছর কমপক্ষে ১২২টি মসজিদ এমন হামলার শিকার হয়েছে।

তিনি জানান, নিও-নাৎসি বা অন্য উগ্রবাদী সংগঠনগুলো ডজনের বেশি মসজিদে বোমা হামলার হুমকি পাঠিয়েছে। হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে দুশ্চিন্তা কাজ করছে। এরগুন বলেন, আমরা পুলিশ কর্তৃপক্ষকে এই বিষয়ে আরো কার্যকর তদন্ত এবং হামলার সাথে জড়িত অপরাধীদের গ্রেফতারের আবেদন করছি।

জার্মানির তুর্কি-মুসলিম সম্প্রদায়ের বৃহত্তম সংগঠনটির নেতা এরগুন জানান, মুসলিমবিদ্বেষী মনোভাব বাড়তে থাকায় দেশটিতে মুসলমানরা তাদের দৈনন্দিন জীবনে আরো বেশি বৈরিতা ও শারীরিক আক্রমণের শিকার হচ্ছেন। তিনি জানান, বিশেষ করে হেডস্কার্ফ পরা মুসলিম নারীরা প্রায়ই রাস্তায় বিভিন্ন হয়রানির শিকার হচ্ছেন। এছাড়াও শারীরিক আক্রমণের ঘটনা আগের চেয়ে বেড়ে চলছে।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের তথ্যানুসারে, জার্মানিতে ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে নভেম্বর পর্যন্ত পুলিশ ৬৩২টি ইসলাম বিদ্বেষমূলক অপরাধ লিপিবদ্ধ করেছে। এরমধ্যে অপমান, হুমকিমূলক চিঠি, ধর্মীয় অনুশীলনে বাধা, শারীরিক আক্রমণ ও সম্পদের ক্ষতি অন্তর্ভুক্ত।

আসল সংখ্যা এর থেকেও বেশি বলে মনে করা হচ্ছে। আক্রান্তদের বেশিরভাগই বিশেষ করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর অনাস্থার কারণে পুলিশের কাছে কোনো অভিযোগ করেন না।

জার্মানিতে তুর্কি-মুসলিম সম্প্রদায়ের বৃহত্তম সাংস্কৃতিক সংস্থা এটিআইবি’র চেয়ারম্যান দুরমুশ ইলদিরিম জনতুষ্টিবাদী জাতীয়তাবাদী রাজনীতিবিদদের অভিবাসী ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে হিংসা ও বৈষম্য ছড়িয়ে দেয়ার জন্য সমালোচনা করেন। আনাদোলু এজেন্সিকে তিনি বলেন, আমরা এই ধরনের বর্ণবাদী ও জনতুষ্টিবাদী আচরণের অবসান চাই। শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের জন্য প্রচেষ্টা নেয়া উচিত।

ইলদিরিম একইসাথে মুসলিমবিরোধী ও তুর্কিবিরোধী ঘৃণার বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান তৈরির আহ্বান জানান। ইলদিরিম জানান, জার্মানির ৩০ লাখ তুর্কি দেশটির উগ্র জাতীয়তাবাদী গোষ্ঠী ও দলগুলো দ্বারা হুমকির মুখে পড়বে না। তিনি বলেন, আমরা ইউরোপের অংশ, এখানেই আমরা একত্রে বাস করছি। আমাদের তৃতীয়, চতুর্থ প্রজন্ম জার্মানিতেই জন্ম নিয়েছে ও বেড়ে উঠেছে। এটি আমাদেরও স্বদেশে পরিণত হয়েছে।


এই বিভাগের আরও সংবাদ
  • নামাজের সময়সূচি
  • রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১
  • সূর্যোদয় :- ৫:১০ সূর্যাস্ত :- ৬:৪৯
    নাম সময়
    ফজর ৪:১৫
    যোহর ১২:১০
    আছর ৪:৫০
    মাগরিব ৬:৪৫
    এশা ৮:১৫
    পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ