সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ১১:৪৭

ওয়েস্ট লন্ডনের আইজলওয়ার্থ দ্বীন সেন্টার জন্য ৫০০ হাজার পাউন্ড প্রয়োজন: চ্যানেল এস টিভিতে লাইভ আপিল ২১ এপ্রিল, সহায়তার হাত প্রসারিত করার আহবান

ওয়েস্ট লন্ডনের আইজলওয়ার্থ দ্বীন সেন্টার জন্য ৫০০ হাজার পাউন্ড প্রয়োজন: চ্যানেল এস টিভিতে লাইভ আপিল ২১ এপ্রিল, সহায়তার হাত প্রসারিত করার আহবান

এখানে শেয়ার বোতাম
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিউজ ডেস্ক, লন্ডন: ওয়েস্ট লন্ডনের হাউন্সলো বারায় একটি পাব (পানসালা) ক্রয় করে সেখানে মসজিদসহ ইসলামিক সেন্টার প্রতিষ্ঠা করেছেন স্থানীয় মুসলিম কমিউনিটির মানুষ। এখন সেখান পাবকে সংস্কারের বিশাল অর্থের প্রয়োজন। জরুরী ভিত্তিতে ৫০০ হাজার পাউন্ড আপিল করেছেন স্থানীয় মুসল্লিরা। গত ১১ এপ্রিল রবিবার ভার্চ্যুয়াল প্রেসকনফারেন্সের মাধ্যমে কমিউনিটির মানুষের কাছে এই আবেদন করা হয়।

প্রেস কনফারেন্সের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন ইমাম আবু সাঈদ আনসারী, স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইডিসির চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান। আইজলওয়ার্থ দ্বীন সেন্টার এর পক্ষ থেকে এই ইসলামিক সেন্টারের বিস্তারিত তুলে ধরেন কমিটির সদস্য আজিজ বারী, সম্পূর্ণ অনুষ্ঠানটি পরিচালনা আকবর হোসেন।

এতে বলা হয় শীঘ্রই এর রিফারবিশমেন্ট কাজ শুরু হবে ইনশাআল্লাহ। এজন্য ৫০০ হাজারে পাউন্ডের উপরে ফান্ডের প্রয়োজন। এর মধ্যে ২৫০ হাজার পাউন্ড হলে আমরা কাজ শুরু করতে পারবো এবং বাকী ২৫০ হাজার পাউন্ড লাগবে পুরো কাজ সম্পন্ন করে সেন্টারকে চালু করা উপযোগী করতে। নিচে পুরো প্রেস কনফারেন্সের বিস্তারিত তুলে ধরা হল-

দ্যা জর্জ ইন পাব ক্রয়: ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে প্রায় ১ মিলিয়ন পাউন্ড দামে একটি কমিউনিটি সেন্টার উইথ প্রেয়ার ফেসিলিটিজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে দ্যা জর্জ পাব ক্রয় করা হয়। সে সময় আমরা আপনাদের সাথে আমাদের প্রথম প্রেস কনফারেন্সে মিলিত হয়েছিলাম। কমিউনিটির মানুষের সর্বাত্মক সাহায্য-সহযোগিতায় আমরা পাবটি আইজেলওয়ার্থ দ্বীন সেন্টারের নামে ক্রয় করতে সক্ষম হই। তারপর দীর্ঘ তিন বছর নানা চেষ্টা তদবিরের পর আল্লাহতাআলার অশেষ রহমতে এবং সবার অক্লান্ত পরিশ্রমে ২০১৯ সালে লোকাল কাউন্সিল এই সেন্টারকে প্লানিং পারমিশন দেয়। শীঘ্রই এর রিফারবিশমেন্ট কাজ শুরু হবে ইনশাআল্লাহ। এজন্য ৫০০ হাজারে পাউন্ডের উপরে ফান্ডের প্রয়োজন। এর মধ্যে ২৫০ হাজার পাউন্ড হলে আমরা কাজ শুরু করতে পারবো এবং বাকী ২৫০ হাজার পাউন্ড লাগবে পুরো কাজ সম্পন্ন করে সেন্টারকে চালু করা উপযোগী করতে।

আইজলওয়ার্থ দ্বীন সেন্টার (আইডিসি), Charity No.: 1143215: আইজলওয়ার্থ দ্বীন সেন্টার ওয়েস্ট লন্ডনের হাউন্সলো বারায় অবস্থিত একটি মসজিদ ও কমিউনিটি সেন্টার। ২০১০ সালে এই সেন্টারের যাত্রা শুরু হয়। উক্ত বারার আইজলওয়ার্থ, রিচমন্ড, টুইকেনহাম, উইটন, হ্যানওয়ার্থ ও ব্রেন্টফোর্ড এলাকায় কোন মসজিদ বা ইসলামিক সেন্টার নেই। দীর্ঘদিন ধরে অত্র এলাকায় বসবাসরত মুসলমানরা বিশেষ করে বাংলাদেশি কমিউনিটি বিভিন্ন সংগঠনের মাধ্যমে একটি মসজিদ প্রতিষ্ঠার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন এবং এরই ধারাবাহিকতায় আইডিসি‘র জন্ম হয়। অত্র এলাকার মুরুব্বীরা সব সময়েই একটি মসজিদ প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখতেন। তাদের অনুপ্রেরণায় এবং কিছু উদ্যমী তরুণদের নিরলস প্রচেষ্ঠার মাধ্যমে আইডিসি আইজেলওয়ার্থ এলাকায় মসজিদ ও কমিউনিটি সেন্টার প্রতিষ্ঠার প্রকল্প হাতে নিয়ে নিয়েছে।

এতোদিন ধরে আইডিসি ‘আইজলওয়ার্থ পাবলিক হল‘ (IPH) ভাড়া করে নিয়মিত জুমুআর নামাজ, তারাবীহ, মুসলিম ছেলেমেয়েদের জন্য দ্বীনি শিক্ষার জন্য সেটারডে স্কুল – আল ফাতিহা সহ নানা কার্যক্র্রম চালিয়ে আসছে। প্রতিনিয়তই জুমুআর নামাজে মুসুল্লী ও স্কুলের শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বাড়ছে (যদিও কভিড পরিস্থিতির কারণে বর্তমানে জুমুআ বন্ধ রয়েছে, তবে বাচ্চাদের জন্য অনলাইন স্কুল চালু রাখা হয়েছে)। কিন্তু একটি নিজস্ব স্থায়ী জায়গা না থাকলে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ সহ অন্যান্য কার্যক্রম বিশেষ করে বাচ্চাদের দ্বীনি শিক্ষা চালিয়ে যাওয়া অত্যন্ত কঠিন এবং ব্যয়বহুলও বটে। তাই সংগঠনের ট্রাষ্টি ও ম্যানেজমেন্ট কমিটির সদস্যরা স্থায়ী ঠিকানা খুঁজতে থাকেন এবং এক পর্যায়ে আইজলওয়ার্থে দ্যা জর্জ পাব কেনার সুযোগ আসে।
ফান্ড রেইজিং কার্যক্রম

বর্তমানে আমাদের কাছে প্রায় ৬০/৬৫ হাজার পাউন্ডের মতো ফান্ড আছে। আসন্ন পবিত্র রামাদ্বানকে সামনে রেখে আমরা ফান্ড রেইজিংয়ের জন্য নানাবিধ পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। আমাদের টার্গেট হচ্ছে ১শ‘টির মতো জাষ্টগিভিং পেইজ খোলা যা‘ ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে এবং ধীরে ধীরে আমরা সে লক্ষ্যে পৌঁছে যাচ্ছি। আপনারা জেনে খুশি হবেন যে, আমাদের ছোট্ট ছেলেমেয়েরাও এক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই। তারাও বড়দের পাশাপাশি মসজিদের জন্য ফান্ড সংগ্রহে প্রতিযোগিতায় নেমেছে। আমরা ইতোমধ্যে ফ্রেন্ডস অব আইডিসি নামে বিভিন্ন মসজিদ, ইসলামিক সেন্টার ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের সাথে জুম মিটিং করেছি। সবার কাছ থেকে খুবই ইতিবাচক ও আশাব্যঞ্জক সাড়া পাচ্ছি। আজ আমরা লন্ডন-বাংলা প্রেসক্লাবের মতো একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সংগঠনের সাথে প্রেস কনফারেন্স করছি। আমরা চাই আপনাদের মাধ্যমে আমাদের এই কথাগুলো কমিউনিটিতে ছড়িয়ে পড়ুক। আপনারা জাতির বিবেক। মিডিয়া একটি শক্তিশালী মাধ্যম। আর আপনারা এর প্রতিনিধিত্ব করছেন এবং কষ্ট করে আমাদের আমন্ত্রণে সাড়া দিয়েছেন। এজন্য আবারো আপনাদের আমরা ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

আইডিসি‘র ভিশন: কমিউনিটির মানুষের শারিরীক ও মানসিক জীবনমানের উন্নয়নমূলক সেবা, ধর্মীয় ও কালচারাল বোধের বিকাশ ও জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকল সম্প্রদায়ের সাথে সুসম্পর্ক স্থাপনসহ ইসলামী শিক্ষার প্রচার ও প্রসারের প্রত্যয় নিয়ে আইডিসি যাত্রা শুরু করে।

বর্তমান কার্যক্রম: আইজেলওয়ার্থ পাবলিক হলে জুমুআ, তারাবীহ ও আল ফাতিহা ইসলামিক স্কুল (সেটারডে স্কুল), এমপ্লয়মেন্ট, আলোচনা, ওয়াজ, সেমিনার, ছেলেমেয়েদের উপযোগী অনুষ্ঠান, মহিলা পুরুষদের জন্য আলাদা আলাদা শিক্ষামূলক অনুষ্ঠান, অন্যান্য ফেইথ গ্রুপের সাথে যৌথ অনুষ্ঠান, ফুড ব্যাংকের জন্য খাবার সংগ্রহ ও বিতরণসহ নানাবিধ কার্যক্রম চালু রয়েছে।

ঈদ ইন দ্যা পার্ক: এটি আমাদের এলাকায় একটি অত্যন্ত জনপ্রিয়, সু্শৃংখল, আনন্দময় ও স্বতঃস্ফূর্ততায় ভরপুর আইডিসি আয়োজিত ঈদ জামায়াত অনুষ্ঠান – ঈদ ইন দ্যা পার্ক। বছরে দু‘বার ঈদের সময় স্থানীয় পার্কে পরিবারের সবাই স্বাচ্ছন্দ্যে অংশগ্রহণ করেন। পার্কে নামাজের পর বাচ্চাদের উপযোগী নানা বিনোদনমূলক আয়োজন থাকে এবং হালকা আপ্যায়নের ব্যবস্থাও রাখা হয়। এতে বাংলাদেশী কমিউনিটির বাইরেও অন্যান্য কমিউনিটির মানুষ স্বপরিবারে অংশগ্রহণ করে থাকেন।

করোনা ভাইরাস লকডাউন: করোনার মাঝেও আমাদের কার্যক্রম থেমে নেই। আইডিসি লোকাল বিজনেস মালিকদের সহযোগিতায় পুলিশ, ফায়ার সার্ভিসসহ ফ্রন্টলাইন অফিসার, কর্মীদের মাঝে খাবার বিতরণ করে। এলাকার বয়স্ক মানুষদের জন্য ঔষধ সংগ্রহ এবং মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক পরামর্শ প্রদানও বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

ভবিষ্যত পরিকল্পনা: সেন্টারটি চালু হলে এখানে ৫ ওয়াক্ত নামাজ, ছেলেমেয়েদের ইসলামী শিক্ষা, বিভিন্ন শিক্ষামূলক ও স্বাস্থ্য বিষয়ক অনুষ্ঠান, ট্রেনিং ও দক্ষতাবৃদ্ধি কর্মসূচী থাকবে। ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে এলাকার মানুষের কল্যাণে নানা সেবামূলক কার্যক্রম, সবার জন্য অপেন ডে, এক্সিভিশন, ধর্মীয়, সামাজিক, অর্থনৈতিক ইস্যূতে পারস্পরিক আলাপ আলোচনা ও গবেষণার ভিত্তিতে পরামর্শ প্রদান, সর্বোপরি আগামী প্রজন্মের জন্য তাদের বিশ্বাসের লালন, চারিত্রিক মাধুর্য এর বিকাশ ও সুনাগরিক তথা আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠবার সুবিধাসহ একটি অত্যাধুনিক সেন্টারের প্রতিষ্ঠাই আমাদের লক্ষ্য ।

শেষ কথা: পরিশেষে, আগামী ২১ এপ্রিলের চ্যানেল এস লাইভ আপিলকে সফল করে তোলার জন্য আইডিসির পক্ষ থেকে আকুল আহবান জানাচ্ছি। আল্লাহর ঘর মসজিদের রিফার্বিশমেন্ট কাজের জন্য কমিউনিটির সবার সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছি। এই আইডিসি‘র মাধ্যমেই আমাদের মুরুব্বীদের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হবে বলে আমরা বিশ্বাস করি। আল্লাহতাআলা আমাদেরকে সে তওফিক দান করুন।

করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলে এবং সেন্টারের যাবতীয় কাজ শেষ হলে এই প্রতিষ্ঠানের উদ্বোধনের সময় আপনাদের অংশগ্রহণের জন্য আগাম আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। লকডাউনের কারণে আমাদেরকে ভার্চুয়ালি প্রেস কনফারেন্স করতে হলো। ইনশাআল্লাহ আগামীতে আমরা একসাথে বসার আশাবাদ ব্যক্ত করে এবং সকলের সুস্বাস্থ্য ও সার্বিক কল্যাণ কামনা করে এবং আপনাদেরকে আবারো ধন্যবাদ জানিয়ে আমার বক্তব্য শেষ করছি।


এখানে শেয়ার বোতাম
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  






পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
All rights reserved © 2021 shirshobindu.com