রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫৬

যুক্তরাজ্যে ১৫ বছরের বালক ২৬ বছরের যুবতীর যৌন লালসার শিকার

যুক্তরাজ্যে ১৫ বছরের বালক ২৬ বছরের যুবতীর যৌন লালসার শিকার

/ ৪২
প্রকাশ কাল: শনিবার, ২২ মে, ২০২১

শীর্ষবিন্দু নিউজ, লন্ডন: চারদিকে করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত।  এ সময় নিজের দু’সন্তানকে নিয়ে বড় বিপদে পড়েন কেয়ার ওয়ার্কার হিসেবে কাজ করা লরা বার্ডলে নামের ২৬ বছর বয়সী এক যুবতী। এ সময় তাকে সহায়তায় এগিয়ে এলেন একটি পরিবার। তারা তাকে আশ্রয় দিলেন।

কিন্তু আশ্রয় পাওয়ার পর আশ্রয়দাতার মাত্র ১৫ বছর বয়সী স্কুলপড়ুয়া ছেলের সঙ্গে অনিরাপদ যৌন সম্পর্ক গড়ে তোলেন লরা বার্ডলে। তাদের মধ্যে অবাধে চলতে থাকে যৌন সম্পর্ক। রগরগে ম্যাসেজ পাঠাতে থাকেন লরা বার্ডলে। গত বছর জুনের ঘটনা।

একবার কিচেনে তাদেরকে চুম্বনরত অবস্থায় দেখে ফেলেন এক প্রতিবেশী। এ ছাড়া ওই বালকটির মা বেডরুম পরিষ্কার করতে গিয়ে আবিষ্কার করেন প্রেমপত্র। চার মাসের সম্পর্কে এসব প্রেমপত্র ওই ছাত্রকে লিখেছেন লরা বার্ডলে। এর আগেই বালকটির মায়ের সন্দেহ হয়েছিল। কারণ, তার ছেলের আচরণ, পোশাকে পরিবর্তন এসে গিয়েছিল। সে স্মার্টলি পোশাক পরে বেশির ভাগ সময় কাটাতো ওই যুবতীর বাসায়। সেখানে প্রথমে তার বাচ্চাদের সঙ্গে খেলাধুলা করতো। কিন্তু এর ফাঁকে তাদের মধ্যে যে যৌন সম্পর্ক গড়ে উঠেছে তা তিনি বুঝতে পারেননি। তার ছেলে ওই যুবতীর বাসা থেকে অনেক রাত করে বাসায় ফিরতে থাকে। এরই মধ্যে ওই চিঠি চলে যায় বালকটির মায়ের হাতে। ঘটনা আস্তে আস্তে জানাজানি হয়।

দীর্ঘদিনের পার্টনারের সঙ্গে সম্পর্কে অবনতি হওয়ার পর যৌন শিকার হিসেবে ওই বালককে টার্গেট করেন লরা বার্ডলে। তিনি ঠাঁই পাওয়ার পর তার প্রতি আগ্রহী হয়ে পড়ে ওই বালকটি। তার ঘরে ঘন ঘন যাওয়া আসা করতে থাকে সে। তার সন্তানদের সঙ্গে খেলা করতে খেলনা নিতে যেতো।

প্রসিকিউটিং কর্মকর্তা ডানিয়েল কালডার বলেছেন, এক পর্যায়ে বালকটির মা লক্ষ্য করেন তার ছেলে পুরোটা অবসর সময় কাটাচ্ছে লরা বার্ডলের ঘরে। তার নিয়মিত যেসব শখ ছিল তাতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছে। লরা বার্ডলের বাসায় যাওয়ার সময় সে স্মার্ট পোশাক পরতে থাকে। অনেক রাত পর্যন্ত তার বাসায় অবস্থান করে। এ সময়ে তাদের মধ্যে রগরগে যৌনতা সম্বলিত বার্তা বিনিময় হতে থাকে। বালকটি লরা বার্ডলের বাসায় যে পরিমাণ সময় ব্যয় করতে শুরু করে তাতে তার পিতামাতা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে সে কোথায় ছিল সে সম্পর্কেও মা-বাবার কাছে মিথ্যে কথা বলতে শুরু করে।  কিন্তু প্রেমপত্রের সূত্র ধরে সব প্রকাশ হয়ে পড়ে। ৩রা সেপ্টেম্বর এসব প্রেমপত্র নিয়ে শুনানি হয় আদালতে। এই প্রেমপত্রের ফটোকপি করে লরা বার্ডলের পার্টনারকে সতর্ক করা হয়।

এক পর্যায়ে বালকটির মা হলওয়েতে ঝুলানো তার ছেলের কোটে দেখতে পান প্রেমপত্র। এরপরই তিনি কোটের পকেট তল্লাশি করেন। তাতে পান কনডম। তিনি আর নিজেকে ধরে রাখতে পারলেন না। মুখোমুখি হলেন লরা বার্ডলের। তিনি লরা বার্ডলেকে সতর্ক করে তার ছেলে থেকে দূরে সরে যেতে বলেন। এদিন সন্ধ্যায়ই তার ছেলে বাড়ি থেকে পালায়। তাকে পাওয়া যায় একটি হোটেলকক্ষে। সঙ্গে প্রেমিকা লরা বার্ডলে।

পুলিশ তদন্তে যেসব তথ্য পেয়েছে, তাতে সব টেক্সট মুছে দেয়ার কথা বলা হয়েছে ওই বালককে। একই সঙ্গে বালকটিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজের নাম ও ছবি পরিবর্তন করতে উৎসাহিত করেছেন লরা বার্ডলে। এরপরও তাদের সম্পর্ক অব্যাহত থাকে। অবশেষে ১১ই সেপ্টেম্বর লরা বার্ডলেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তিনি ওই বালকটির সঙ্গে যৌন সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেন। প্রাথমিকভাবে তিনি স্বীকারোক্তি দিতে অস্বীকৃতি জানান।

ম্যানচেস্টারের মিনশাল স্ট্রিট ক্রাউন কোর্ট এ অভিযোগে ৬ বছরের জেল দিয়েছে লরা বার্ডলেকে। কিন্তু জেলে বসেও তিনি নিজেকে নিবৃত রাখেননি। জেলের ভিতরেই একটি মোবাইল ফোন সংগ্রহ করে ফেলেন এবং ওই বালককে রগরগে ম্যাসেজ পাঠাতে থাকেন। তাতে তিনি বুঝাতে থাকেন ওই বালকটিকে তিনি কত বেশি ভালবাসেন। এক পর্যায়ে বালকটির যখন গ্রীষ্মকালীন ছুটি হয়, তখন তাকে একের পর এক প্রেমপত্র লিখতে থাকেন লরা বার্ডলে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
All rights reserved © shirshobindu.com 2021