মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৫৬

সিলেটে ভোটের মাঠে প্রার্থীরা ব্যস্ত প্রচারণায়

সিলেটে ভোটের মাঠে প্রার্থীরা ব্যস্ত প্রচারণায়

শীর্ষবিন্দু নিউজ, সিলেট / ৮৮
প্রকাশ কাল: শুক্রবার, ২৭ আগস্ট, ২০২১

সিলেট-৩ আসনে গত ২৮শে জুলাই ছিল নির্বাচনের দিন। কিন্তু মহামারি করোনার প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ার কারণে আদালতের নির্দেশে প্রচারণার শেষদিনে এসে ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছিল নির্বাচন কমিশন। পরে চলতি সপ্তাহে নির্বাচন কমিশন থেকে ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। তাই এবার সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ফের মাঠে প্রার্থীরা। চূড়ান্ত লড়াইয়ে জয় ছিনিয়ে নিতে প্রচারণায় ব্যস্ত তারা।

তবে নির্বাচন কমিশন থেকে প্রচারণার সময় দেয়া হয়েছে মাত্র একদিন। ফলে দলীয় ব্যানারে নানা কর্মসূচিতে প্রার্থীরা নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন। তাদের ঘিরে কর্মী-সমর্থক এবং ভোটাররাও সরব হয়ে উঠেছেন। আগামী ৪ঠা সেপ্টেম্বর এ আসনের উপনির্বাচন। নির্বাচন কমিশন থেকেও ভোটগ্রহণের প্রস্তুতি চলছে। সিলেট-৩ আসনের এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর মৃত্যুর পর এ আসনে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছিল।

উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী হয়েছেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, জাতীয় পার্টির প্রার্থী প্রেসিডিয়াম সদস্য আতিকুর রহমান আতিক, স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন সাবেক এমপি শফি আহমদ চৌধুরী ও বাংলাদেশ কংগ্রেস থেকে জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়া।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবের পক্ষে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ভোটের মাঠে একাট্টা। এরই মধ্যে দলের কেন্দ্রীয় নেতারা এসে তার পক্ষে প্রচারণা চালিয়ে গেছেন। এছাড়া নির্বাচন স্থগিত হওয়ার পরও হাবিবুর রহমান হাবিব দলীয় ব্যানারের কর্মসূচিতে ভোটের মাঠে সক্রিয় রয়েছেন। আওয়ামী লীগ নেতারা জানিয়েছেন, হাবিবের পক্ষে নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ থাকায় ভোটের মাঠে তার অবস্থান সুসংহত। এছাড়া উন্নয়নের কারণে এবারের উপনির্বাচনেও সিলেট-৩ আসনের মানুষ নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ। নির্বাচনের শুরুতে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে দূরত্ব থাকলেও কেন্দ্রীয় ও সিলেটের নেতাদের কঠোর হস্তক্ষেপে দলে একতা ফিরে এসেছে। এখন দলের নেতাকর্মীরা গ্রামে গ্রামে ভোট প্রার্থনা করছেন। প্রয়াত এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে সবার কাছে সহযোগিতাও চাচ্ছেন হাবিব।

তিনি জানিয়েছেন, নির্বাচিত হলে সিলেট-৩ আসনকে একটি মডেল এলাকা হিসেবে গড়ে তুলবেন। প্রয়াত এমপির উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় তিনি কাজ করবেন। এতে করে অবহেলিত এলাকাগুলো পাবে উন্নয়নের ছোঁয়া। সিলেট-৩ আসনে ভোটের মাঠে ১৯৯১ সাল থেকে রয়েছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী আলহাজ আতিকুর রহমান আতিক। কিন্তু এখন পর্যন্ত তিনি জয়ের দেখা পাননি। বারবার প্রার্থী হলেও ভাগ্য তার সহায় হয়নি। এ কারণে আতিক শেষবারের জন্য সবার সমর্থন আশা করেন।

আতিকের পক্ষে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা সক্রিয় হয়ে মাঠে নেমেছেন। এছাড়া বিএনপিসহ অন্যান্য শরিক দলের তৃণমূলের সমর্থনও পাচ্ছেন তিনি। ফলে এ আসনের উপনির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবের সঙ্গে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলেছেন আতিক। গত দুই সপ্তাহ ধরে দলীয় ব্যানারে আয়োজিত কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে আতিক ভোট প্রচারণা চালাচ্ছেন। তার সঙ্গে সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির নেতারা ঐক্যবদ্ধ। তবে ভোটের পরিবেশ নিয়ে আতিকের আপত্তি রয়েছে। মাঠ পর্যায়ে পুলিশ কর্মকর্তাদের ভূমিকা নিয়ে আপত্তি তার। এ কারণে জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে এরই মধ্যে নির্বাচন কমিশনে চিঠি দেয়া হয়েছে। ২৮শে জুলাইয়ের আগে তার নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুরমা মোগলাবাজার এলাকায় মামলাও হয়েছে। এ কারণে ভোটের মাঠে সতর্ক আতিক।

আতিকুর রহমান আতিক জানিয়েছেন, মহান সংসদে গিয়ে আমি আপাময় সাধারণ মানুষের পক্ষে কথা বলতে চাই। প্রয়াত সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে চাই উল্লেখ করে আতিক বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে স্নেহ করেন। আমি জনপ্রতিনিধি না হয়ে ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রীকে মোগলাবাজারে কৃষক সমাবেশে নিয়ে এসেছিলাম। নির্বাচিত হলে উন্নয়নের ক্ষেত্রে সিলেট ৩ আসন অগ্রাধিকার পাবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

নির্বাচন ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে আগের চেয়ে অনেক সুসংহত অবস্থান গড়ে তুলেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ও সাবেক এমপি শফি আহমদ চৌধুরী। তার পক্ষে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হচ্ছেন। শফি আহমদ চৌধুরীও ভোটের প্রচারণায় জোর দিয়েছেন। তার সঙ্গে সিলেট-৩ আসনের মুরব্বিসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা অবস্থান নিয়েছেন। ফলে নির্বাচনে জয়ের আশা দেখছেন শফি আহমদ চৌধুরী। জীবনের শেষ বয়সে এসে জনগণের উন্নয়নের জন্য প্রার্থী হয়েছেন বলে জানান তিনি।

স্বতন্ত্র প্রার্থী আলহাজ শফি আহমদ চৌধুরী জানিয়েছেন, প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর অপার সম্ভাবনার এক জনপদ সিলেট। আমার নির্বাচনী এলাকা দক্ষিণ সুরমা এবং ফেঞ্চুগঞ্জের ওপর দিয়ে এই সম্পদ দেশের বিভিন্ন স্থানে ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও আমার নির্বাচনী এলাকা সিলেট-৩ আসনের বাসিন্দারা এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত। উপনির্বাচনে আমাকে নির্বাচিত করলে ইন্‌শাআল্লাহ দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জবাসী এই সুবিধা উপভোগ করবে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
All rights reserved © shirshobindu.com 2021