সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৫:২০

ইংল্যান্ডে ফের বিধিনিষেধ আরোপে স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের আহবান

ইংল্যান্ডে ফের বিধিনিষেধ আরোপে স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের আহবান

শীর্ষবিন্দু নিউজ, লন্ডন / ২২৩
প্রকাশ কাল: বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর, ২০২১

শীতে ইংল্যান্ডে করোনা মহামারি খারাপ পর্যায়ে যেতে পারে। এ জন্য অবিলম্বে করোনা ভাইরাস বিষয়ক কিছু বিধিনিষেধ নতুন করে চালু করার জন্য কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছেন দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

তাদের সংগঠন এনএইচএস কনফেডারেশন সতর্ক করেছে এই বলে যে, মন্ত্রীদেরকে ‘প্লান-বি’ কৌশল বাস্তবায়ন করা উচিত। এর অধীনে জনাকীর্ণ স্থানে এবং আবদ্ধ স্থানে মুখে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা উচিত। এর কারণ, ব্রিটেনে নতুন করে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে শীতের সময়ে যে পরিমাণ মানুষ মারা যান, তার চেয়ে অনেক নিচে আছে মৃত্যুর সংখ্যা। সরকার বলেছে, তাদের বিধিনিষেধ দেয়ার আর কোনো পরিকল্পনা মোটেও নেই। তবে তারা সাম্প্রতিক পরিসংখ্যানের ওপর নিবিড় নজর রাখছে।

মঙ্গলবার রিপোর্টে বলা হয়েছে, টানা সাত দিন ধরে দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ হাজারের ওপরে। নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৩ হাজার ৭৩৮। মার্চের পর সেখানে সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষ মারা গেছেন। তাদের সংখ্যা ২২৩। মঙ্গলবার এক দিনে মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। এরই মধ্যে ইংল্যান্ডে এই শীতে করোনা ভাইরাস মোকাবিলার জন্য সরকারের ‘প্লান-এ’ প্রয়োগ করা হয়েছে। এর অধীনে করোনা ভাইরাসের বুস্টার ডোজ দেয়া হবে প্রায় ৩ কোটি মানুষকে। ১২ থেকে ১৫ বছর বয়সীদের এক ডোজ টিকা দেয়া হচ্ছে। জনাকীর্ণ স্থানে লোকজনকে মুখে মাস্ক পরতে বলা হয়েছে।

যদি এসব পদক্ষেপ টেকসই না হয় তাহলে ‘প্লান বি’-এর অধীনে কিছু কিছু ক্ষেত্রে লোকজনকে মুখ ঢেকে রাখা বাধ্যতামূলক করার আহবান জানিয়েছেন ওইসব স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। তারা বাসা থেকে কাজ করতে নির্দেশ দিতে বলেছেন। ভ্যাক্সিন পাসপোর্ট চালু করতে বলেছেন।

এনএইচএস কনফেডারেশন ব্রিটেনে স্বাস্থ্য বিষয়ক সংগঠনগুলোর প্রতিনিধিত্ব করে থাকে। এর প্রধান ম্যাথিউ টেইলর সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন, হাসপাতালগুলোতে রোগী উপচে পড়া এড়াতে হলে অতিরিক্ত ওইসব পরিকল্পনা (প্লান বি) জরুরি ভিত্তিতে বাস্তবায়ন করতে।

তিনি বলেন, এই শীত হতে পারে রেকর্ড চ্যালেঞ্জিং। তাই এর জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা খাত (এনএইচএস)। বিলম্ব না করে সরকারের জন্য এখনই সময় প্লান-বি কার্যকর করা। কারণ, এমন পদক্ষেপ না নিলে শীতে সঙ্কট খুব বেড়ে যাবে। মন্ত্রীদের উচিত হবে না করোনা সংক্রমণ আকাশ ছোঁয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

All rights reserved © shirshobindu.com 2021