বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:৪৫

ব্রিটেনে করোনা আক্রান্তদের সংখ্যা বৃদ্ধি

ব্রিটেনে করোনা আক্রান্তদের সংখ্যা বৃদ্ধি

শীর্ষবিন্দু নিউজ, লন্ডন / ২৭৪
প্রকাশ কাল: বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন, ২০২২

ব্রিটেনে বাড়ছে করোনাভাইরাস সংক্রমণ। ইংল্যান্ডে হাসপাতালে রোগি ভর্তি বেড়ে গেছে। এ খবর দিয়েছে লন্ডনের অনলাইন দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট ও আইনিউজ।

জাতীয় স্বাস্থ্য বিষয়ক স্কিম (এনএইচএস)-এর ডাটা থেকে দেখা যাচ্ছে, অমিক্রন সাব ভ্যারিয়েন্ট এমনভাবে রূপান্তরিত হয়েছে যে, তা ফুসফুসকে টার্গেট করতে পারে। এর ফলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে, নতুন করে কোভিড ঢেউ শুরু হতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অমিক্রনের দুটি সাব-ভ্যারিয়েন্টের ওপর এপ্রিল থেকে অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে। তারা জানার চেষ্টা করছে এই দুটি সাব ভ্যারিয়েন্ট তাদের পূর্বসুরিদের তুলনায় অধিক সংক্রামক কিনা। এই দুটি ভ্যারিয়েন্ট হলো বিএ.৪ এবং বিএ.৫। একই সঙ্গে এ মাসে ব্রিটেনে দৈনিক লক্ষণযুক্ত আক্রান্তের শতকরা হার ৭৫ ভাগ বেড়ে গেছে।

এপ্রিলের পর প্রথমবার দিনে সেখানে কমপক্ষে দুই লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। কিংস কলেজ লন্ডনের প্রফেসর টিম স্পেক্টর পরিচালিত ‘জো কোভিড’ স্টাডি অ্যাপ থেকে সর্বশেষ পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, এ মাসে দৈনিক লক্ষণযুক্ত দুই লাখ ১২১ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

ওদিকে ইন্ডিপেন্ডেন্টের রিপোর্টে বলা হয়, গত সপ্তাহে নতুন হিসাবে দেখা যায়, ব্রিটেনে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের শতকরা হার বৃদ্ধি পেয়েছে শতকরা ৪৩ ভাগ। এ ঘটনা ঘটে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের প্লাটিনাম জুবিলি উদযাপনের পর। আকস্মিক সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার পিছনে দুটি নতুন সাব-ভ্যারিয়েন্ট রয়েছে বলে মনে করা হয়।

উপরন্তু ১১ জুনে সমাপ্ত সপ্তাহে ব্রিটেনে প্রায় ১৪ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আগের সপ্তাহে এই সংখ্যা ছিল ৯ লাখ ৯০ হাজার। ইউনিভার্সিটি অব টোকিও’র কিই সাতো ও তার সহকর্মীদের প্রাথমিক ডাটা অনুযায়ী, বিএ.৪, বিএ.৫ এবং বিএ.২.১২.১ সাব ভ্যারিয়েন্ট এমনভাবে রূপান্তরিত হয়েছে যে, তা শ্বাসনালীর টিস্যুর পরিবতে ফুসফুসের কোষকে আক্রান্ত করতে পারে।

ফলে এই ভ্যারিয়েন্ট  এর আগে শনাক্ত হওয়া আলফা অথবা ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের মতো আচরণ করতে পারে। কিই সাতো বলেছেন, আমাদের পুরো গবেষণা বলছে অরিজিনাল সাবভ্যারিয়েন্ট বিএ.২ এর চেয়ে অধিক শক্তিশালী স্বাস্থ্যঝুঁকি সৃষ্টির সক্ষমতা আছে এই সাবভ্যারিয়েন্টগুলোর।

করোনাভাইরাস মহামারির পর এটাই সেখানে সর্বোচ্চ। তবে মধ্য মার্চ ও মধ্য এপ্রিলের সময়ে দিনে সংক্রমণের সংখ্যা পিক বা সর্বোচ্চ প্রায় সাড়ে তিন লাখে পৌঁছে যায়। কমপক্ষে দু’মাস ধরে বৃটেনে আক্রান্তের সংখ্যা দুই লাখ পেরিয়ে গেছে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮  
All rights reserved © shirshobindu.com 2022