সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৭:৫৯

মাই ইএলএম এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হলো ‘অ্যান ইভনিং উইথ শায়খ আব্দুল কাইয়ূম’

মাই ইএলএম এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হলো ‘অ্যান ইভনিং উইথ শায়খ আব্দুল কাইয়ূম’

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি / ৮৯
প্রকাশ কাল: শুক্রবার, ৮ জুলাই, ২০২২

ইস্ট লন্ডন মসজিদের ‘মাই ইএলএম’ প্রজেক্টের উদ্যোগে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো ‘অ্যান ইভনিং উইথ শায়খ আব্দুল কাইয়ূম’ শীর্ষক বিশেষ অনুষ্ঠান।

৩০ জুন বৃহস্পতিবার মারিয়াম সেন্টারের বারাকা খান গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত দেড় ঘণ্টার এই বিশেষ সন্ধ্যায় ‘মাই ইএলএম’ এর প্রায় ৩০ জন সদস্য অংশগ্রহণ করেন। ইস্ট লন্ডন মসজিদের প্রধান ইমাম শায়খ আব্দুল কাইয়ুম তাঁর স্বাগতিক বক্তব্যে মসজিদে নিয়মিত যাওয়া-আসা ও সম্পৃক্ত থাকার ইহকালিন ও পরকালিন কল্যাণ বর্ণনা করেন।

এরপর আগত অতিথিরা প্রশ্নোত্তর সেশনে অংশগ্রহণ করেন। তাঁরা শায়খ আব্দুল কাইয়ুমের কাছে একান্ত পরিবেশে বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চান। তিনিও সকলের জিজ্ঞাসার জবাব দেন। শুরুতে বক্তব্য রাখেন ইস্ট লন্ডন মসজিদের ফাইন্যান্স এন্ড এনগেইজমেন্ট ডাইরেক্টর দেলওয়ার খান। বক্তব্য রাখেন গ্রেটার সিলেট কাউন্সিলের চেয়ারপার্সন ব্যারিস্টার আতাউর রহমান।

‘মাই ইএলএম’ এর সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আবুল কালাম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুল মুহিত চৌধুরী, প্রিসেপ্ট ফাইন্যান্স এর ডাইরেক্টর মোঃ আশরাফুল ইসলাম, শামীম চৌধুরী ও আবুল ফজল, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বাবলুল হক, তসলিম ফিউনারেল সার্ভিসের ম্যানেজার সাঈদ আবু মাজিদ, এলসিএল টু্যর এর ডাইরেক্টর মোহাম্মাদ নাজিম উদ্দিন, ডিজি অওয়ার্লড সলিসিটর্স ফার্মের পার্টনার সলিসিটর আনিস রহমান, সরকার সলিসিটর্স এর প্রিন্সিপাল আব্দুল হালিম সরকার, লাইম সলিউশনের ডাইরেক্টর মাসুদুর রহমান, সাংবাদিক এনাম চৌধুরী ও ইউসুফ উসামা।

শায়খ আব্দুল কাইয়ূম বলেন, মসজিদের সাথে সম্পৃক্ত থাকা ও নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করা ঈমানের নিদর্শন। রাসুল (সাঃ) বলেছেন, যখন তুমি দেখবে কোনো ব্যক্তি নিয়মিত মসজিদে যাচ্ছে, তখন তুমি সাক্ষি দিতে পারবে যে ওই ব্যক্তির ঈমান আছে। মসজিদে নামাজের জন্য কিংবা অন্য কোনো প্রয়োজনে যাওয়া-আসা করা ঈমানের একটি লক্ষন। আর নিয়মিত মসজিদে না যাওয়ার লক্ষন হচ্ছে বিপরীত। অর্থাৎ ওই ব্যক্তির মধ্যে ঈমানদার হওয়ার লক্ষন নেই।

পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, নিশ্চয় ঈমানদার (বিশ্বাসী) মানুষেরা মসজিদ নির্মাণ ও পরিচালনা করে থাকে। হাদীসে আরো বলা হয়েছে, একজন ব্যক্তি সকাল-সন্ধ্যায় যতবার মসজিদে যাতায়াত করবে, প্রতিবারই তাঁর জন্য জান্নাতে কিছু বিনোদনের ব্যবস্থা প্রস্তুত করে রাখা হবে।

হাদীসে আরো বলা হয়েছে, মসজিদ হচ্ছে মুত্তাকীদের (খোদাভীরু) ঘর। একজন মুত্তাকী যেভাবে নিজের ঘরে শান্তিতে বসবাস করেন তেমনই মসজিদে অবস্থানকালে নিজের ঘরের মতো প্রশান্তিবোধ করে থাকেন। কিন্তু তিনি যদি কোনো সভায়, বাজারে কিংবা অফিসে থাকেন তাহলে ঘরের মতো প্রশান্তিবোধ করেন না। যে ব্যক্তি মসজিদকে তাঁর নিজের ঘর হিসেবে বিবেচনা করবে, আল্লাহ তায়ালা তাঁর সব দায়-দায়িত্ব নিয়ে নেবেন।

আল্লাহ তায়ালা তাঁর ওপর করুণা বর্ষণ করবেন এবং পুলসিরাত পাড়ি দিয়ে আল্লাহ তায়ালা সাক্ষাৎ লাভ সহজ করে দেবেন। রাসুল (সাঃ) যখন মে’রাজে গমন করেন, তখন তাঁর উম্মতের ভালো কাজগুলো তাঁকে দেখানো হয়। এর মধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য ভালো কাজ হলো, মসজিদ পরিস্কার করা, ধূলাবালি মুছে পরিচ্ছন্ন রাখা। এটা একটি বড় ইবাদত।

শায়খ আব্দুল কাইয়ূম সকলের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন- আসুন, আমরা যখনই সময় পাই মসজিদে চলে আসি, মসজিদে সময় কাটাই। পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ করে, পরামর্শ দিয়ে, অর্থ দান করে মসজিদকে সহযোগিতা করি।

উল্লেখ্য, ‘মাইল ইএলএম’ অর্থাৎ আমার ইস্ট লন্ডন মসজিদ প্রতিষ্ঠিত হয় ২০২১ সালের রামাদ্বান মাসে। মুলত মানুষকে মসজিদমুখী করা, মসজিদের সাথে সম্পৃক্ত করা এবং সর্বোপরি তাদের পরামর্শ ও সযোগিতা নেওয়ার লক্ষ্য নিয়েই এই প্রজেক্ট চালু করা হয়। ‘মাই ইএলএম’ এর সদস্য সংখ‌্যা ৫৮ জন। ‘ফ্রেন্ডস অব ইএলএম’ এবং ‘অ্যাসোসিয়েটস অব ইএলএম’- এই দুই ক্যাটাগরিতে নির্ধারিত মাসিক ডনেশন দিয়ে মেম্বার হওয়া যায়। ফ্রেন্ডস অব ইএলএম অব্যবসায়ীদের জন্য এবং ‘অ্যাসোসিয়েটস অব ইএলএম’ ব্যবসায়ীদের জন্য।

‘মাই ইএলএম’ এর সদস্যদের জন্য বছরজুড়ে বিভিন্ন আয়োজন থাকে। প্রতি বছর ঈদুল ফেতর ও ঈদুল আজহায় তাঁদের সম্মানে ‘ঈদ ব্রেকফাস্ট’ আয়োজন করা হয়। ঈদের দিন সকালে একটি নির্ধারিত সময়ে সদস্যরা মসজিদে আসেন, ফ্রেকফাস্ট করেন এবং পাস্পারিক কুশল বিনিময় করতে পারেন। বিভিন্ন নেটওয়ার্কিং অনুষ্ঠানে তাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়। তাঁদের পরামর্শ ও অভিজ্ঞতা গ্রহণ করা হয়।

মেম্বার হওয়ার সাথে সাথে ওয়েলকাম প্যাক পাঠানো হয়। বিভিন্ন এক্সিবিশনে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আমন্ত্রণ জানানো হয়। বছরে প্রায় পাঁচবার মসজিদের ইমামের সঙ্গে একান্ত পরিবেশে প্রশ্নোত্তর সেশনে অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া হয়। তাছাড়া, অ্যাসোসিয়েটস সদস্যদের বিজনেস লগো ‘মাই ইএলএম’ এর ওয়েবসাইটে ডিসপ্লে করার সুযোগ থাকে । মাই ইএলএম এর সাথে সম্পৃক্ত হতে অথবা আরো বিস্তারিত জানতে প্রজেক্ট কোঅর্ডিনেটর আবু খায়ের এর সাথে যোগাযোগ (myelm@londonmuslimcentre.org.uk) করা যাবে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮  
All rights reserved © shirshobindu.com 2022