শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:১১

ব্রিটিশ রাজতন্ত্র বিরোধীদের গ্রেপ্তারে উদ্বেগ প্রকাশ

ব্রিটিশ রাজতন্ত্র বিরোধীদের গ্রেপ্তারে উদ্বেগ প্রকাশ

শীর্ষবিন্দু নিউজ, লন্ডন / ৯১
প্রকাশ কাল: বৃহস্পতিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২

রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর পর দেশটির নতুন রাজা হয়েছেন তৃতীয় চার্লস। কিন্তু দেশের অনেকেই তাকে রাজা হিসেবে মানছেন না। কেউ কেউ এই রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধেও সোচ্চার হয়েছেন। এবার রানীর মৃত্যুর পর প্রকাশ্যেও দেখা গেছে নতুন রাজাকে তিরস্কার করছেন কেউ কেউ।

সাম্প্রতিক দিনগুলোতে ব্রিটিশ রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে আন্দোলন করায় অনেক মানুষকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ব্রিটেনে রাজতন্ত্র বিরোধীদের গ্রেপ্তার নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন দেশটির অধিকারকর্মীরা। অনলাইন প্ল্যাটফর্ম রেডিটে গড়ে উঠেছে বিশাল কমিউনিটি যারা বহুদিন ধরেই এই রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালাচ্ছেন।

আল-জাজিরার খবরে জানানো হয়েছে, প্রকাশ্যে রাজার বিরুদ্ধে ‘চ্যালেঞ্জ’ ছুঁড়ে দেয়া এই ব্যক্তিদের গ্রেপ্তার করেছে ব্রিটিশ পুলিশ। আর এতে মত প্রকাশের স্বাধীনতা ব্যহত হচ্ছে বলে উদ্বেগ জানিয়েছেন মানবাধিকার নিয়ে সক্রিয়রা।

এডিনবার্গে এক সমাবেশে এক নারী প্ল্যাকার্ডে লিখে এনেছিলেন, ‘রাজার শাসন ধ্বংস হোক, রাজতন্ত্র বিলুপ্ত হোক’। কিন্তু তার বিরুদ্ধে শান্তি নষ্টের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। লন্ডনে আরেক নারী পার্লামেন্টের গেটে দাঁড়িয়ে ‘নট মাই কিং’ বা তিনি আমার রাজা নন প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করায় তাকে সেখান থেকে সরিয়ে দেয়া হয়।

ফলে প্রশ্ন উঠছে, কর্তৃপক্ষ মানুষের বাক স্বাধীনতা হরণ করছে কিনা। প্রিন্স অ্যান্ড্রুকে কটাক্ষ করায় এক ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। অক্সফোর্ডে অধিকারকর্মী সাইমন হিল জনসমক্ষে প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন, কে চার্লসকে রাজা হিসেবে নির্বাচিত করেছে? এ জন্য তাকে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

এদিকে সোশ্যাল মিডিয়া টুইটারে এরইমধ্যে ‘নটমাইকিং’ হ্যাশট্যাগ ট্রেন্ডিং হয়ে উঠেছে। নাগরিক অধিকার সংগঠন লিবার্টি বলছে, মানুষের মত প্রকাশের স্বাধীনতা হরণ করতে পুলিশ যেভাবে তাদের ক্ষমতা ব্যবহার করছে তা নিয়ে তারা উদ্বিগ্ন।

রাজতন্ত্রের অবসান নিয়ে কাজ করে রিপাবলিক নামের একটি সংগঠন। তারা বলছে, রাজার অভিষেকের বিরুদ্ধে তারা বড় আন্দোলন গড়ে তুলবে। এর মুখপাত্র গ্রাহাম স্মিথ বলেন, যে কোনো গণতন্ত্রের মূলভিত্তিই হচ্ছে মত প্রকাশের স্বাধীনতা।

পুলিশ কর্মকর্তারা তাকে জানান, অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির অভিযোগে তাকে আটক করা হয়েছে। পরে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। কিন্তু তাকে আবারও জেরা করা হতে পারে। তিনি বলেন, দেশের প্রধানের নিয়োগ হয়েছে অগণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে। এর বিরোধিতা করলে পুলিশ তাদের ক্ষমতার অপব্যবহার করে আমাদেরকে গ্রেপ্তার করছে।




Leave a Reply

Your email address will not be published.



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

All rights reserved © shirshobindu.com 2022