সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:৫৫

হ্যারির স্ত্রী মেগানকে নিয়ে বিস্কোরক মন্তব্য করায় উইলিয়ামের বিরুদ্ধে অভিযোগ

হ্যারির স্ত্রী মেগানকে নিয়ে বিস্কোরক মন্তব্য করায় উইলিয়ামের বিরুদ্ধে অভিযোগ

শীর্ষবিন্দু নিউজ, লন্ডন / ১০৮
প্রকাশ কাল: শুক্রবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২৩

ব্রিটিশ রাজপুত্র প্রিন্স হ্যারির স্ত্রী মেগান মার্কেলকে কেন্দ্র করে প্রিন্স হ্যারিকে মারধর করেন তার বড় ভাই উইলিয়াম। নিজের আত্মজীবনীতে এমন বিস্ফোরক দাবি করেছেন হ্যারি। তিনি বলেছেন, কলার চেপে ধরে তাকে মাটিতে ফেলে দিয়েছিলেন উইলিয়াম। ব্রিটিশ গণমাধ্যম গার্ডিয়ানের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে আল-জাজিরা।

প্রিন্স হ্যারির বহুল প্রতীক্ষিত স্মৃতিকথামূলক বই ‘স্পেয়ার’ বাজারে আসবে এ মাসের ১০ তারিখে। সেই বইয়ে অগ্রজ প্রিন্স উইলিয়ামের বিরুদ্ধে গায়ে হাত তোলার অভিযোগ করেছেন প্রিন্স হ্যারি। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।

প্রিন্স হ্যারি তার বইটিতে লিখেছেন, তার স্ত্রী মেগানকে প্রিন্স উইলিয়াম ‘অভদ্র’, ‘রূঢ়’, ‘বেয়াদব’ বলেছেন। এ নিয়ে ভাইয়ের সঙ্গে তিনি বাগযুদ্ধে জড়ান। একপর্যায়ে হ্যারির কলার চেপে ধরেন উইলিয়াম।

এরপরের ঘটনা উইলিয়াম লিখেছেন এভাবে—ঘটনা খুবই দ্রুত ঘটলো। তিনি আমার কলার চেপে ধরে ঝাঁকাতে থাকলেন। আমার গলার নেকলেস ছিঁড়ে গেল। এরপর তিনি আমাকে ধাক্কা দিয়ে মেঝেতে ফেলে দিলেন। আমি ছিটকে কুকুরের খাবার রাখা পাত্রের ওপর পড়ে গেলাম। পাত্রটি ভেঙে আমার পিঠ কেটে গেল। আমি হতবাক হয়ে ওখানেই শুয়ে থাকলাম। তিনি আমার পায়ের কাছে এসে দাঁড়ালেন এবং ঘর থেকে বের হয়ে যেতে বললেন।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে মারা গেছেন ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। তার মৃত্যুর পর রাজার সিংহাসনে আরোহণ করেন প্রিন্স উইলিয়াম ও প্রিন্স হ্যারির বাবা ৯৬ বছর বয়সি চার্লস। মূলত মেগান মার্কেলের সঙ্গে বিয়ের পর থেকেই রোষানলে পড়েন প্রিন্স হ্যারি। শেষ পর্যন্ত ২০১৯ সালে রাজপরিবার ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি দেন হ্যারি-মেগান।

তারপর থেকেই দুই ভাইয়ের মধ্যে সম্পর্কের টানাপোড়েনের বিষয়গুলো প্রকাশ্যে আসতে শুরু করে। ২০২০ সালে স্ত্রী মেগান মার্কেলকে নিয়ে রাজপরিবারের দায়িত্ব ছেড়ে ক্যালিফোর্নিয়ায় চলে গেছেন প্রিন্স হ্যারি। এরপর থেকে রাজপরিবার ও ভাইবোনদের সঙ্গে হ্যারির সম্পর্কের আরও অবনতি হয়েছে।

গত বছর বিখ্যাত টেলিভিশন তারকা অপরা উইনফ্রের সঙ্গে একটি সাক্ষাৎকারে বসেছিলেন প্রিন্স হ্যারি। সেই সাক্ষাৎকারে তিনি রাজপরিবার ও ভাইবোন সম্পর্কে বিস্ফোরক মন্তব্য করেন।

এ ছাড়া নেটফ্লিক্সের একটি তথ্যচিত্রে হ্যারি ও ৪১ বছর বয়সী মেগান তাদের যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় পাড়ি জমানোর নেপথ্যের কারণ বলেছেন। সেই তথ্যচিত্রে তারা রাজপরিবারের সঙ্গে তাদের নানা নেতিবাচক অভিজ্ঞতা অকপটে প্রকাশ করেছেন। তবে বই প্রকাশের আগেই তথ্য কী করে ফাঁস হয়ে গেলো, তা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। প্রকাশক সংস্থা পেঙ্গুইনের বিরুদ্ধে তদন্তও শুরু হবে।

এখানেই শেষ নয়। এরপর উইলিয়াম বলে, তুমিও আমাকে মারো। তবে শেষ পর্যন্ত হ্যারির মনে হয়েছিল, গোটা ঘটনায় অনুতপ্ত ব্রিটিশ সিংহাসনের উত্তরাধিকারী উলিয়াম। স্ত্রী মেগানকে এই বিষয়ে কিছু না বলার আবেদনও জানান উইলিয়াম। তবে হ্যারির পিঠে আঘাতের চিহ্ন দেখে সব ঘটনা জানতে পারেন মেগান। রাগ করার বদলে মেগান দুঃখ পেয়েছিলেন বলেই জানিয়েছেন হ্যারি।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮  
All rights reserved © shirshobindu.com 2022