শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ১০:২৫

যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে ধনী পরিবার হিন্দুজা’র ৪ সদস্যের কারাদণ্ড

যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে ধনী পরিবার হিন্দুজা’র ৪ সদস্যের কারাদণ্ড

যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে ধনী পরিবার হিন্দুজা’র চার সদস্যকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। জেনেভায় অবস্থিত নিজেদের বাসভবনে ভারত থেকে আনা গৃহকর্মীদের শোষণের দায়ে পরিবারটির চার সদস্যকে চার থেকে সাড়ে চার বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে তাদের।

রায় ঘোষণার সময় আদালতে হিন্দুজা পরিবারের কোনো সদস্য উপস্থিত ছিলেন না। সত্তরোর্ধ্ব প্রকাশ ও কোমল হিন্দুজা অসুস্থতার আবেদন জানিয়ে আদালতে হাজির হননি। অজয় ও নম্রতা আদালতে এলেও, রায় শোনার সময় হাজির ছিলেন না।

একাধিক ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমে প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, অবৈধভাবে চাকরিতে নেওয়ার ও শোষণের অভিযোগে এক সুইস আদালত দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন প্রকাশ ও কোমল হিন্দুজা এবং তাদের ছেলে অজয় ও পুত্রবধূ নম্রতা। রায়ে প্রকাশ ও কোমল হিন্দুজাকে সাড়ে চার বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আর অজয় ও নম্রতাকে চার বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

তবে, প্রায় ৪ হাজার ৮ কোটি ডলার সম্পদের মালিক হিন্দুজা পরিবারকে অবশ্য মানবপাচারের মতো গুরুতর অভিযোগ থেকে খালাস দেওয়া হয়েছে। আর তাদের পক্ষের আইনজীবীরা জানিয়েছেন, কারাদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে।

হিন্দুজা পরিবারের বিরুদ্ধে জেনেভায় করা মামলার অভিযোগে বলা হয়, পরিবারটি ভারত থেকে সুইজারল্যান্ডে কর্মচারী নিয়ে আসতো। আর এসব গৃহকর্মীদের দিনে ১৮ ঘণ্টা কাজ করার বিনিময়ে মাত্র ৮ ডলার বেতন দিত ধনী এই পরিবারটি। সুইজারল্যান্ডের আইনে এই বেতন স্বাভাবিকের দশ ভাগের এক ভাগ। সেইসঙ্গে কর্মীদের পাসপোর্টও কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ ছিল তাদের বিরুদ্ধে।

কর্মীরা আরও অভিযোগ করেছিলেন, তাদেরকে বাসভবন থেকে বেরই হতে দেওয়া হয় না বলা যায়। বিচারের সময় কর্মীদের কৌঁসুলিরা অভিযোগ করেন, গৃহকর্মীর চেয়ে পোষা কুকুরের জন্য বেশি অর্থ ব্যয় করে হিন্দুজা পরিবার। পরিবারটি কুকুরের জন্য বছরে প্রায় ১০ হাজার ডলার খরচ করে বলে দাবি কৌঁসুলিদের।

অন্যদিকে, হিন্দুজা পরিবারের আইনজীবীদের দাবি, কর্মীদের পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা দেয় হিন্দুজা পরিবার। গৃহকর্মীদের বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়নি ও তারা ইচ্ছামতো যেকোনো সময় হিন্দুজাদের বাসভবন ছেড়ে বের হতে পারতেন।

হিন্দুজাদের আইনজীবী রবার্ট অ্যাসেল বলেছেন, আদালের এই রায়ে আমি স্তম্ভিত। আমরা শেষ পর্যন্ত লড়া করবো।

এদিকে, শোনা গেছে, অভিযোগ ওঠানো তিন কর্মচারীর সঙ্গে গোপনে একটি সমঝোতায় পৌঁছেছিল হিন্দুজা পরিবার। কিন্তু অভিযোগের ভয়াবহতার কথা বিবেচনা করে মামলাটি চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন কৌঁসুলিরা।

হিন্দুজা পরিবার বহুজাতিক কোম্পানি হিন্দুজা গ্রুপের মালিক। গ্রুপটির তেল, গ্যাস, ব্যাংকিং ও স্বাস্থ্য খাতে ব্যবসা রয়েছে। বিশ্বের ৩৮টি দেশে এসব খাতে হিন্দুজা পরিবারের ব্যবসা আছে। লন্ডনের র‍্যাফলস হোটেলের মালিকও হিন্দুজা পরিবার। বিশ্বজুড়ে তাদের কর্মকর্তা-কর্মচারীর সংখ্যা প্রায় দুই লাখ।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
All rights reserved © shirshobindu.com 2012-2024