মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৫:১৩

সিলেট নগরীতে রাস্তায় পশুর হাট না বসাতে স্মারকলিপি প্রদান

সিলেট নগরীতে রাস্তায় পশুর হাট না বসাতে স্মারকলিপি প্রদান

/ ৫৬
প্রকাশ কাল: বুধবার, ৩০ জুন, ২০২১

শীর্ষবিন্দু নিউজ, সিলেট: আসছে কোরবানীর ঈদে সিলেট নগরীর রাস্তার উপর যত্রতত্র পশুর হাট না বসাতে সিলেটের জেলা প্রশাসক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ও সিটি মেয়র বরাবরে আবেদন করেছেন স্থানীয় নেতৃবৃন্দও ব্যবসায়ীরা।

গত রোববার (২৭ জুন) পৃথকভাবে এ সকল আবেদন দাখিল করা হয়। এতে আবেদন করেছেন ৪ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা। এছাড়াও ৬৭ জন প্রবাসীর ক্রয়কৃত আম্বরখানা মোড় সংলগ্ন আবাসন এসোসিয়েট প্রাইভেট লিমিটেড এর জায়গায় পশুর হাট না বসাতে আবেদন করেছেন প্রকল্প পরিচালক মো. খিজির আহমদ।

প্রসঙ্গত, সিসিক’র আবেদনে যে ৮টি স্থানে অস্থায়ী পশুর হাট বসানোর জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে, সেগুলো হল- আম্বরখানা আবাসন সংলগ্ন মাঠ, চৌকিদেখি পয়েন্ট সংলগ্ন রাস্তার উপর, রিকাবীবাজার পয়েন্ট সংলগ্ন রাস্থার জায়গা, মদিনা মার্কেট নবাবী মসজিদ সংলগ্ন জায়গা, মাছিমপুর কয়েদীর মাঠ, টিলাগড় পয়েন্ট সংলগ্ন রাস্তা উপর জায়গা, দক্ষিণ সুরমা কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের অব্যবহৃত জায়গা, ঝালোপাড়া মসজিদ সংলগ্ন জায়গা।

জানা যায়, নগরীর ৬নং ওয়ার্ড এর অর্ন্তগত চৌকিদেখি রাস্তা বা আম্বরখানা রাস্তার মোড়ে পশুর হাট না বসাতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সিলেট নগরীর ৪ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড নেতৃবৃন্দ, অর্ধশত ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা স্বাক্ষরিত তাদের আবেদনে উল্লেখ করেন, সিসিক’র ৪ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডে অবস্থিত আম্বরখানা আবাসন সংলগ্ন মাঠ ও চৌকিদেখী পয়েন্ট সংলগ্ন রাস্তা। এ দু’টি স্থান সিলেটের বিমানবন্দর সড়কে অবস্থিত। ওই দুই স্থানে নেই গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা।

এছাড়া এয়ারপোর্ট সড়ক দিয়ে প্রতিদিন শতশত ট্রাক ও নানা ধরণের যানবাহন চলাচল করে। বিশেষ করে ভিআইপিদের চলাচল ওই সড়ক দিয়ে বেশী। প্রায়ই ওই সড়কে দুর্ঘটনায় ঘটে। আর বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি ঊর্ধ্বগতি। ওই দুটি স্থানে অস্থায়ী হাট বসালে পরিবেশের ক্ষতি ও জনগণ নানা ধরণের সমস্যার সম্মুখীন হবেন। তাই জনগণের কথা চিন্তা করে ওই দুই স্থানের সড়কের উপর পশুর হাট না বসানোর জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানানো হয়। পৃথক পৃথকভাবে আবেদন দাখিলের সময় ৪ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় নাগরিক ও ব্যবসায়ীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও আবাসন এসোসিয়েট প্রাইভেট লিমিটেড তাদের আবেদনে উল্লেখ করেন, তারা বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পারেন ঈদুল আযহা উপলক্ষে নগরীর বিভিন্ন সড়কের মোড়সহ ৮টি স্থানে অস্থায়ী পশুর হাট বসাতে চায় সিসিক। এর মধ্যে তাদের পরিচালকসহ ৬৭ জনের ১৫ বছর পূর্বে ক্রয়কৃত আবাসন প্রকল্প রয়েছে। তাদেরকে না জানিয়ে এ স্থানে পশুর হাট বসাতে চায় সিসিক। তারা সকল পরিচালকগণ এ বিষয়ে সম্মত নন। তাছাড়া তাদের প্রকল্পের চারপাশে আবাসিক এলাকা রয়েছে। আর বর্তমানে করোনাক্রান্তের সংখ্যা উর্ধ্বমূখি, তাই ওই স্থানে পশুর হাট বসালে এলাকারও ব্যাপক ক্ষতি হবে। ফলে সেখানে পশুর হাট না বসানোর জন্য অনুরোধ জানানো হয়।

উল্লেখ, গত ১৩ জুন সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী ৮৬৮/৩ নম্বর স্মারকে সিলেট জেলা প্রশাসকের বরাবরে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ ৬ টি সড়কের মোড় ও দুটি মসজিদের পাশে অস্থায়ী পশুর হাট বসানোর জন্য আবেদন করেন।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
All rights reserved © shirshobindu.com 2021