শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ১১:৫৩

প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেবেন কিয়ের স্টারমার

প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেবেন কিয়ের স্টারমার

ভূমিধস জয়ের ফলে আজ শুক্রবার দিনের শেষে কোনো এক সময় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেবেন বিরোধী লেবার দলের নেতা স্যার কিয়ের স্টারমার। এর মধ্য দিয়ে কনজারভেটিভ দলের ১৪ বছরের ক্ষমতার ইতি ঘটবে।

তবে প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ পাওয়ার আগে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক প্রথমে বাকিংহাম রাজপ্রাসাদে সাক্ষাৎ করবেন রাজা চার্লসের সঙ্গে। সেই সাক্ষাতে রাজার কাছে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দেবেন। এর পরপরই রাজার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যাবেন কিয়ের স্টারমার।

তিনি রাজা চার্লসের কাছে সরকার গঠনের অনুমতি চাইবেন। এ সময়েই নিয়ম অনুযায়ী তাকে প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ দেবেন রাজা। সেখান থেকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তিনি সোজা ছুটে যাবেন প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ১০ ডাউনিং স্ট্রিটে।

এই বাসভবনের সামনে দাঁড়িয়ে মিডিয়ার উদ্দেশে বক্তব্য রাখবেন। তারপর ঐতিহাসিক কালো দরজা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রবেশ করবেন ডাউনিং স্ট্রিটের ওই বাড়িতে। তার দল প্রত্যাশার চেয়েও বেশি ভাল ফল করায় ব্রিটেনজুড়ে উল্লাস চলছে। নেতাকর্মীরা নেচেগেয়ে উদযাপন করছেন জয়।

এর আগে ব্রিটেনকে ১৪ বছর শাসন করেছে কনজারভেটিভ দল। এ সময়ে নানা জটিলতায় একে একে ৫ জন কনজারভেটিভ প্রধানমন্ত্রী দায়িত্বে এসেছেন।  তার মধ্যে শেষ জন ঋষি সুনাক নির্বাচনে স্থানীয় সময় শুক্রবার স্থানীয় সময় ভোর ৪টা ৪০ মিনিটে পরাজয় স্বীকার করে নেন। স্বীকার করেন লেবার দল জয়ী হয়েছে।

তিনি অভিনন্দন জানান কিয়ের স্টারমারকে। এর কয়েক মিনিট পরে কিয়ের স্টারমার জাতীয় নবজাগরণের প্রতিশ্রুতি দেন। বলেন, দেশ প্রথম। দল দ্বিতীয়। লন্ডনে উল্লসিত লেবার নেতাকর্মীদের তিনি বলেন, আমরা ম্যান্ডেট পেয়েছি। এই দেশের সবাই মিলে যে আইডিয়া ধারণ করেন তাকে নবায়ন করার চেয়ে কম কিছু হবে না।

অনলাইন বিবিসি বলছে, এবার নির্বাচনে বিস্ময়করভাবে যেন ২০১৯ সালের নির্বাচনের প্রতিফলন ঘটেছে। ওই সময় লেবার দলের নেতৃত্বে ছিলেন বর্ষীয়ান বামপন্থি রাজনীতিক জেরেমি করবিন। নির্বাচনে তাদের ভরাডুবি হয়। তাকে বলা হয়, এক শতাব্দীর মধ্যে তাদের সবচেয়ে ভয়াবহ পরাজয়।

অন্যদিকে এবারকার নির্বাচনে কনজারভেটিভ দলের গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকজন মন্ত্রী ও সাবেক মন্ত্রী পরাজিত হয়েছেন। তার মধ্যে আছেন ৪৯ দিন ক্ষমতায় থাকা সাবেক প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস এবং ঋষি সুনাকের মন্ত্রিপরিষদের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী।

পরাজিত হয়েছেন সাবেক কনজারভেটিভ মন্ত্রী রবার্ট বাকল্যান্ড। কিন্তু কনজারভেটিভ দল হিসেবে যে ফল করেছে তাকে প্রায় ২০০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ হিসেবে দেখা হচ্ছে। এর ফলে সামনের দিনগুলোতে দল কোনদিকে অগ্রসর হবে তা নির্ধারণ হবে।

ব্রিটেনে হাউস অব কমন্সের আসন সংখ্যা ৬৫০। এর প্রতিটি আসন আলাদা আলাদা নির্বাচনী এলাকাকে নির্দেশ করে। বিবিসি বলছে, এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লেবার পার্টি জয় পেয়েছে ৪১২ আসনে। কনজারভেটিভ মাত্র ১২০ এবং মধ্যপন্থি লিবারেল ডেমোক্রেট পেয়েছে ৭১ আসন। ব্রেক্সিট পার্টির উত্তরসুরি রিফর্ম ইউকে চারটি আসনে জিততে চলেছে। একই অবস্থা বামপন্থি গ্রিন পার্টির।

এবার নির্বাচনে সবচেয়ে বড় পরাজয় সম্ভবত ঘটেছে লিজ ট্রাসের। তিনি ৪৯ দিন ক্ষমতায় থাকার পর পার্লামেন্টে অনাস্থা ভোটে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করে তার দল। তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন সাউথ ওয়েস্ট নরফোক আসনে। এর আগে তিনি এই আসনে ২৪১৮০ ভোটে জয়ী হয়েছিলেন। কিন্তু এবার লেবার পার্টির কাছে অল্প ব্যবধানে হেরেছেন।

কনজারভেটিভ দলের সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী জ্যাকব রিস-মগ আরেকজন হেভিওয়েট পরাজিত হয়েছেন। তিনি লেবার দলের প্রার্থীর কাছে ইস্ট সমারসেট অ্যান্ড হ্যানহ্যামে পরাজিত হয়েছেন। এই পরাজয়ের জন্য তিনি নিজেকে ছাড়া অন্য কাউকে দোষ দিতে চান না। ইংল্যান্ডের দক্ষিণে নিজের আসন হারিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী গ্রান্ট শেপস।

লিডার অব হাউস পেনি মরডন্ডও হেরেছেন। তিনি দলীয় প্রধান পদে ঋষি সুনাকের বিপরীতে নির্বাচন করেছিলেন। যদি নির্বাচিত হতেন তখন, তাহলে তিনিই হতেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু তাকে পরাজিত করে ঋষি সুনাক হয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সেই পেনি মরডন্ট তার আসন হারিয়েছেন।

পরাজিত হয়েছেন কনজারভেটিভ পার্টির নেতা ও শিক্ষামন্ত্রী গিলিয়ান কিগান, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী লুসি ফ্রাজার, ভ্যারেটর‌্যানস মিনিস্টার জনি মারসার। অন্যদিকে বৃটেনের অর্থমন্ত্রীর সমতুল্য চ্যান্সেলর পদে দায়িত্ব পালনকারী জেরেমি হান্ট তার আসন ধরে রেখেছেন।

তবে পার্থক্য কমেছে। ইয়র্কশায়ারের আসনে স্বাচ্ছন্দ্যে জিতেছেন ঋষি সুনাক। কিন্তু নির্বাচনের ফল প্রকাশ হতে থাকলে অবস্থা অনুধাবন করে তিনি দলীয় পরাজয় মেনে নেন। এর দায় নিজের কাঁধে নেন।

লেবার দলও কিন্তু বড় দুই নেতাকে জেতাতে পারেনি। তারা হলেন জোনাথন অ্যাশওয়ার্থ এবং থাঙ্গাম দেবোনায়ার। এই দুই নেতারই কিয়ের স্টারমারের মন্ত্রীপরিষদে স্থান পাওয়ার কথা ছিল।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
All rights reserved © shirshobindu.com 2012-2024